প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান রোববার দুপুরে সৈয়দপুর সরকারী কারিগরি কলেজের ৫০ বছরপূর্তি অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে বলেছেন, প্রধান শিক্ষকদের সঙ্গে সহকারী শিক্ষকদের বেতনবৈষম্য নিরসনের এক দফা দাবিতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকরা যে আমরণ অনশন শুরু করেছেন সে ব্যপারে তারা আমাকে কিছুই বলেননি। চুড়ান্ত কর্মসূচিতে যাওয়া আগে তারা আমাকে বলতে পারতো। কেনো বলেননি, তা আমি জানি না, হয়তো তাদের কোনো সীমাবদ্ধতা ছিলো। তিনি আরো বলেন,আমরণ অনশন বলতে বুঝায় মৃত্যু ঝুঁকি। বর্তমান সরকারের কাছে মৃত্যু ঝুঁকি নিয়ে কোনো আন্দোলন করে কেউই বেতন বাড়াতে কি পেরেছে? সরকার নিজেই সিদ্ধান্ত নিয়ে পর পর তিন বার প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন বাড়িয়েছে। তারা সরকারের উপর ভরসা রাখতে পারেন। আলোচনার মাধ্যমেই সমস্যার সমাধন হতে পারে।

তিনি আজ দুপুরে নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর সরকারী কারগরি কলেজের ৫০ বছরপূর্তি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন। এই অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, প্রধান সমন্বয়ক পদ্মা বহুমুখি সেতু এবং পদ্ম সেতু রেল সংযোগ প্রকল্প চেয়ারম্যান মেজর জেনালের আবু সাঈদ মোঃ মাসুদ পিএসসি, অতিরিক্ত ডিআইজি(ক্রাইম এন্ড অপরেশন ) ঢাকা রেঞ্জ বাংলাদেশ পুলিশ মোঃ আবুল কালাম সিদ্দীক,নীলফামারী জেলা প্রশাসক মোঃ খালেদ রহিম, পুলিশ সুপার মোঃ জাকির হোসেন খান, বাংলাদেশ রেলওয়ে সৈয়দপুর জেলা পুলিশ সুপার তাঞ্জিলুর রহমান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযুদ্ধ জয়নাল আবেদীন,উপজেলা নিবাহী অফিসার,বজলুর রশিদ, প্রকৌশলী জুলফিকার হোসেন বকুল,বিশিষ্ট চিকিৎসাক মোঃ নজরুল ইসলাম, সৈয়দপুর আঃলীগ উপজেলা সাধারণ সম্পাদক আখতার হোসেন বাদল,সৈয়দপুর উপজেলা চেয়ারম্যান মোকছেদুল মোমিন ও সৈয়দপুর পৌর আঃ লীগ ভারপ্রাপ্ত রফিকুল ইসলাম বাবু। এ অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আশা প্রতিষ্ঠানের প্রাক্তন প্রায় ২ হাজার ছাত্র/ছাত্রী অংশগ্রহণ করে।

Comments

comments

আরও পড়ুনঃ   এবার প্রাথমিক শিক্ষকদের কাফন মিছিল

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

eleven + 11 =