বিশ্বব্যাপী আল-কায়েদার শক্তি একটুও খর্ব হয়নি। তাদের শক্তি ‘উল্লেখযোগ্যভাবে অটুট’ রয়েছে। জঙ্গি গোষ্ঠীটি এখনও কোন কোন অঞ্চলে ইসলামিক স্টেট (আইএস)-এর চেয়েও বড় ধরনের হুমকি।
বুধবার জাতিসংঘ অনুমোদিত পর্যবেক্ষণকারীদের এক প্রতিবেদনে একথা বলা হয়েছে। খবর বার্তা সংস্থা এএফপি’র।
নিরাপত্তা পরিষদে পাঠানো ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইয়েমেন ভিত্তিক আল কায়েদা ইন অ্যারাবিয়ান পেনিনসুলা (একিউএপি) জাতিসংঘ স্বীকৃত জঙ্গি গোষ্ঠিটির যোগাযোগ কেন্দ্র হিসেবে কাজ করে।
প্রতিবেদনটিতে বলা হয়েছে, ‘আল-কায়েদা সংশ্লিষ্ট জঙ্গি সংগঠনটি সোমালিয়া ও ইয়েমেনের মতো কোন কোন অঞ্চলে এখনো হুমকি হয়ে আছে। অঞ্চলগুলোতে অব্যাহতভাবে জঙ্গি হামলা হচ্ছে। আবার নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা অনেক হামলা ব্যর্থ করে দিচ্ছে।’
এতে আরো বলা হয়েছে, পশ্চিম আফ্রিকা ও দক্ষিণ এশিয়ায় আইএস বর্তমানে চালকের আসনে পৌঁছাতে ব্যর্থ হওয়ায় আল-কায়েদা সংশ্লিষ্ট সংগঠনগুলো গুরুতর হুমকি হিসেবে দেখা দিয়েছে।
কোন কোন অঞ্চলে জঙ্গিবাদ মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে পারে বলে সতর্ক করে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জাতিসংঘ সদস্য রাষ্ট্রগুলো অবশ্য আল-কায়েদা ও আইএস এর মধ্যে পারস্পারিক সমর্থন ও যোগাযোগের সম্ভাবনা দেখতে পাচ্ছেন।
আল-নুসরাহ্ কমান্ডস এ যোদ্ধার সংখ্যা ৭ হাজার থেকে ১১ হাজার। এদের মধ্যে কয়েক হাজার বিদেশী যোদ্ধা রয়েছে। সিরিয়ার ইদলিব প্রদেশে সংগঠনটির প্রধান কেন্দ্র।

Comments

comments

আরও পড়ুনঃ   'রোহিঙ্গাদের জন্য বাংলাদেশের কার্যক্রমে অভিভূত তুরস্ক'

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

15 − 15 =