জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার তদন্ত কর্মকর্তাসহ ছয় সাক্ষীর বিরুদ্ধে শাস্তির আবেদন করেছেন খালেদা জিয়া। জাল নথি তৈরি ও মিথ্যা সাক্ষ্য দেয়ার অভিযোগ এনে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তাসহ ছয়জন সাক্ষীর বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়ার লিখিত আবেদন করেন তিনি। তাঁর পক্ষে আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী আদালতে লিখিত আবেদন জমা দেন।
ছয়জন হলেন তদন্ত কর্মকর্তা হারুন অর রশীদ এবং সাক্ষী মাজেদ আলী, শেখ জগলুল পাশা, তৌহিদুর রহমান খান, মোস্তফা কামাল মজুমদার ও আবদুর বারেক ভুঁইয়া। এছাড়া খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলা থেকে অব্যাহতিরও আবেদন করেন তার আইনজীবি।
এর আগে বেলা ১১টা ৫২ মিনিটে আদালতে হাজির হন খালেদা জিয়া। দুপুর ১২টায় বিচারক এজলাসে বসেন। খালেদা জিয়ার পক্ষে যুক্তিতর্ক শুরু করেন তাঁর আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী। সে সময় আদালত দেরিতে আসার জন্য খালেদা জিয়ার উপস্থিতিতে তাঁর আইনজীবীকে ভর্ৎসনা করেন। এ সময় তিনি আট দিন ধরে চলতে থাকা যুক্তিতর্ক শেষ করতে বললে হইচই শুরু করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা।
আদালত বলেন, ‘আদালতের কার্যক্রম শুরু হওয়ার কথা সকাল সাড়ে ৯টায়। আপনারা ১২টার সময় কেন আসলেন? আপনারা আসেন না আসেন, এরপর থেকে আমি সকাল সাড়ে ১০টায় আদালতের কার্যক্রম শুরু করব।’

আদালত বেলা ৩টার কিছু পর দিনের মতো শেষ হয়। বৃহস্পতিবার সকালে আবার আদালতের কার্যক্রম শুরু হবে।

Comments

comments

আরও পড়ুনঃ   মামলার রায়ের ওপর রাজনীতির গতিপ্রকৃতি নির্ভর করছে

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

12 + 8 =