এশিয়ান জনগোষ্ঠীর বন্ধনকে সুদৃঢ় করার আহ্বান জানিয়ে জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, বর্তমান বিশ্ব ক্রমান্বয়ে এশিয়া কেন্দ্রীকতায় পরিণত হচ্ছে। তরুণ জনগোষ্ঠীকে প্রযুক্তিনির্ভর শিক্ষায় শিক্ষিত করে, দারিদ্র্য ও বৈষম্যমুক্ত সমাজ গঠন করতে পারলে আগামী শতাব্দী হবে এশিয়ান শতাব্দী।

আজ শুক্রবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবন মিলনায়তনে এক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। ৬০ বছর পূর্তি উপলক্ষে ঢাবির সমাজবিজ্ঞান বিভাগ দুই দিনব্যাপী এই সম্মেলনের আয়োজন করে।

ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, আগামীর এশিয়ানির্ভর বিশ্বে আমাদের কিছু চ্যালেঞ্জের মুখোমুখী হতে হবে। একে মোকাবেলা করতে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। এজন্য নারীদের অগ্রগতি, রাজনৈতিক উৎকর্ষ সাধন, স্বাস্থ্য, অর্থনীতি, আবিষ্কার এববং প্রযুক্তিগত উন্নতির প্রতি গুরুত্বারোপ করতে হবে। এর মাধ্যমেই দ্রুত উন্নতির মাধ্যমে বিশ্বে মাথা উঁচু দাঁড়ানো সম্ভব হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

স্পিকার বলেন, তরুণ প্রজন্মকে নতুন নতুন উদ্ভাবনী কাজে উৎসাহিত করতে হবে। সমাজের সকল সেক্টরে নারীদের অংশগ্রহণ বাড়াতে হবে। পরিবর্তন বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে আমাদেরকে এগিয়ে যেতে হবে। আর এ ক্ষেত্রে সমাজবিজ্ঞানীরা সবসময় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে এসেছেন।

তিনি বলেন, বিগত ৬০ বছরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগ দেশীয় ও আন্তর্জাতিক পরিম-লে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে। আজকের এই সম্মেলন মাইলফলক হয়ে থাকবে।

এসময় তিনি বিভাগের প্রতিষ্ঠাতাদের মধ্যে অন্যতম অধ্যাপক একে নাজমুল করিমকে স্মরণ করেন।

সমাজবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. নেহাল করিমের সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোভিসি (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমাদ। সম্মেলনে ‘কলোনিয়ালিজম, কোল্ড ওয়ার অ্যান্ড গ্লোবালাইজেশন : সিচুয়েটিং সোসিওলজি ইন সাউথ এশিয়া’ শীর্ষক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন উপমহাদেশের প্রথিতযশা সমাজবিজ্ঞানী ও ‘ইন্টারন্যাশনাল সোসিওলজিকাল অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি পদ্মভূষণ অধ্যাপক টি. কে. উমেন। এতে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক কে এ এম সাদুদ্দীন, অধ্যাপক অনুপম সেন, অধ্যাপক ড. মনিরুল ইসলাম, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. সাদেকা হালিম।

আরও পড়ুনঃ   শিক্ষা খাতে দুর্নীতি বন্ধে দুদকের ৩৯ সুপারিশ

প্রোভিসি অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমাদ গৌরবময় মুক্তিযুদ্ধে সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থী যারা শহীদ হয়েছেন তাদের স্মরণ করে বলেন, ২০২১ সালে গৌরবময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ১০০ বছর পূর্ণ করবে। সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ৬০ বছর পূর্তি সেই গৌরবেরই একটি অংশ।

দুই দিন্যব্যাপী এ সম্মেলনের আটটি সেশনে ৩২টি প্রবন্ধ উপস্থাপন করা হবে। দেশ-বিদেশের সমাজবিজ্ঞানের গবেষকরা এই সেশনগুলোতে প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন। সম্মেলনের প্রথম দিনে ‘দক্ষিণ এশিয়ার প্রেক্ষাপটে সমাজবিজ্ঞানের অবস্থান, ভূমিকা ও গুরুত্ব’ তুলে ধরা হয়। শনিবার এ সম্মেলনের শেষ হবে।

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

20 + twelve =