প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমানের আশ্বাসে অনশন স্থগিতের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন আন্দোলনরত শিক্ষকেরা। সোমবার বিকেলে অনশন স্থল কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এসে শিক্ষক নেতাদের আশ্বাস প্রদান করেন মন্ত্রী। এরপর অনশন স্থগিতের সিদ্ধান্ত নেন সহকারী শিক্ষক নেতৃবৃন্দ। জুস পান করিয়ে শিক্ষকদের অনশন ভাঙান মন্ত্রী। এ সময় তার সাথে ছিলেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব আসিফুজ্জামান কামাল এবং অধিদফতরের মহাপরিচালক আবু হেনা মোস্তফা কামাল।

এ সময় শিক্ষকদের উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, আপনাদের নেতৃবৃন্দকে নিয়েই আমরা আলাপ-আলোচনা করে এ সমস্যার সমাধানের দিকে যাব। আন্দোলন এ সমস্যার সমাধান দিবে না। আলোচনাই এর সমাধান দিতে পারে। মন্ত্রী বলেন, আপনাদের সমস্যার সমাধান না হওয়া পর্যন্ত প্রধান শিক্ষকদের দশম গ্রেডের সুপারিশ বাস্তবায়িত হবে না।

এদিকে অনশন স্থগিত করে এক মাসের দাবি পূরণে এক মাসের আল্টিমেটাম দিয়েছে শিক্ষক নেতারা। তাদের দাবি এ সময়ের মধ্যে দাবি পূরণ না হলে আবারো কঠোর কর্মসূচিতে নামবেন তারা। আন্দোলনে নিজেদের অবস্থান জানিয়ে জোটের অন্তর্গত বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক সমাজের সাধারণ সম্পাদক নুরে আলম সিদ্দিকী রবিউল বলেন, মন্ত্রীর আশ্বাসে মহাজোটের কমিটি এ আন্দোলন স্থগিত করেছে। এক সপ্তাহের মধ্যে আমরা আলোচনায় বসব। এক মাসের মধ্যে যদি আমাদের যৌক্তিক দাবি বাস্তবায়িত না হয় তবে আমরা আবার কঠোর আন্দোলনে যাব। সম্মানের এ দাবিতে প্রয়োজনে শহীদ মিনারে আত্মহুতি দিব আমরা।

এর আগে সোমবার বিকেলে নিজের মিন্টো রোডের বাসায় শিক্ষক মহাজোটের নেতৃবৃন্দের সাথে বৈঠকে বসেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান। এ সময় তারা এক ঘণ্টার দীর্ঘ আলোচনায় এ সিদ্ধান্তে উপস্থিত হন। পরে বিকেল ৫টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আসেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষার তিন প্রধান ব্যক্তিত্ব। এক পর্যায়ে আশ্বাসে দ্বিমত পোষণ করেন অনশনরত শিক্ষকেরা। পরে তারা সর্বসম্মতভাবে একমত হয়ে অনশন স্থগিত করেন।

উল্লেখ্য, প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকদের এক ধাপ নিচে জাতীয় বেতন স্কেলের দাবিতে শনিবার থেকে অনশন করে আসছিলেন সহকারী শিক্ষকেরা। অনশনের তৃতীয় দিনে গতকাল সোমবার আন্দোলন স্থগিত করেন তারা। তিন দিনের এ অনশনে সর্বমোট ৩৯ জন শিক্ষক অসুস্থ হয়েছেন বলে মহাজোটের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ   অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন চায় ইইউ

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

one × four =