উত্তর কোরিয়ার প্রতি আক্রমণাত্মক আচরণের ব্যাপারে আমেরিকাকে সতর্ক করে দিয়েছেন রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ। মঙ্গলবার মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসনের সঙ্গে এক টেলিফোনালাপে এই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি।

ল্যাভরভ বলেন, ওয়াশিংটন কোরীয় উপদ্বীপে উত্তেজনা বাড়িয়ে দিচ্ছে।

আমেরিকা ও রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের টেলিফোনালাপ সম্পর্কে রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছে। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ল্যাভরভ হুমকি-ধমকি ও নিষেধাজ্ঞা পরিহার করে সংলাপের মাধ্যমে উত্তর কোরিয়া সংকটের সমাধান করার জন্য টিলারসনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

বিবৃতিতে বলা হয়, হুঁশিয়ারি সত্ত্বেও দুই শীর্ষ কূটনীতিক এ ব্যাপারে একমত হন যে, উত্তর কোরিয়া পরমাণু অস্ত্র ও আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার মাধ্যমে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাব লঙ্ঘন করেছে।

রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়, আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠার ব্যাপারে নিজেদের মধ্যে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ বজায় রাখতে সম্মত হয়েছেন সের্গেই ল্যাভরভ ও রেক্স টিলারসন।

মার্কিন সরকার উত্তর কোরিয়ার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে দেশটির দু’জন শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার পরপরই রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতি প্রকাশ করা হয়।

জাতিসঙ্ঘের নিষেধাজ্ঞায় যাতে জনদুর্ভোগ না বাড়ে সেদিকে লক্ষ্য রাখুন : চীন
উত্তর কোরিয়ার প্রধান বাণিজ্যিক মিত্র চীন বিবাদে জড়িত উত্তর কোরিয়া ও আমেরিকারকে উত্তজনা কমানোর জন্য গঠনমূলক পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছে। চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হুয়া চুনইং বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে আমরা সব দেশকে ধৈর্য ধরার এবং পরিস্থিতি শান্ত করার জন্য গঠনমূলক প্রচেষ্টা শুরুর আহ্বান জানাই। তিনি বলেন, জাতিসংঘ নিষেধাজ্ঞার কারণে উত্তর কোরিয়ার সাধারণ জনগণের ওপর যেন দুর্ভোগ চেপে না বসে সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে।

কোরিয় উপদ্বীপে সৃষ্ট উত্তেজনার অবসান ঘটানোর জন্য উত্তর কোরিয়া ও আমেরিকার মধ্যে আলোচনা শুরুর আহ্বান জানিয়েছে রাশিয়া। পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপের একদিন পর রাশিয়া এ আহ্বান জানালো।

আরও পড়ুনঃ   রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে সহিংসতা বন্ধের দাবি ইউরোপীয় পার্লামেন্টের

রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভের বরাত দিয়ে দেশটির গণমাধ্যম জানিয়েছে, উত্তর কোরিয়া ও আমেরিকার মধ্যে সম্ভাব্য আলোচনায় মধ্যস্থতা করতে প্রস্তুত রয়েছে মস্কো। ল্যাভরভ বলেন, উত্তর কোরিয়ার পরমাণু অস্ত্র বিষয়ক উচ্চাকাঙ্ক্ষাকে কখনো রাশিয়া সহ্য করবে না এবং স্বাগত জানাবে না কিন্তু পিয়ংইয়ংয়ের ওপর চাপ সৃষ্টি করা ও অবরোধ আরোপ করা একই রকমের বিপজ্জনক পদক্ষেপ।

ল্যাভরভ বলেছেন, রেড লাইন না টেনে এবং পিয়ংইয়ংকে শাস্তি দেয়ার চেষ্টা না করে বরং সুষ্ঠু কূটনীতি শুরু করা উচিত। তিনি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে আরো বলেন, কিছু দেশ উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা কঠোর করতে চায় যা প্রকৃত মানবিক বিপর্যয় ডেকে আনবে।

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

20 − 19 =