কলকাতার জনপ্রিয় অভিনেতা প্রসেনজিৎ এবং অভিনেত্রী অর্পিতা। একই ঘরের বাসিন্দা তারা অর্থাৎ স্বামী-স্ত্রী। দু’জনেই শিল্পী। মনে ও মননে। কিন্তু কেন তবে একই ঘরে অন্য স্বর? একই দিনে, একই সময়ে নিজেদের ছবির আনুষ্ঠানিক ঘোষণা করলেন স্বামী ও স্ত্রীর। কিন্তু তাঁরা আলাদা আলাদা ছবিতে অভিনয় করছেন।

দু’জনেই অভিনয় করছেন এমন চরিত্রে, যারা অন্দরে একই রকম। একজন চিত্রকরের কল্পনা। অন্যজন কিংবদন্তি শিল্পীর অনুগামী।

অর্পিতা অভিনয় করেছেন শিল্পী বিনোদবিহারীর জীবন অবলম্বনে ছবি ‘চিত্রকর’-এ। নামভূমিকায় ধৃতিমান চট্টোপাধ্যায় হলেও, তিনিই শিল্পীর প্রেরণা। শিল্পের উৎস। কালই হয়ে গেল ছবির সাংবাদিক সম্মেলন।

একই দিনে একই সময়ে স্বামী প্রসেনজিৎও ঘোষণা করলেন তাঁর আগামী ছবির। নাম ‘কিশোর কুমার জুনিয়র’। পরিচালনায় কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়। এদিকে কৌশিকের সঙ্গে প্রসেনজিতের অপর ছবি ‘দৃষ্টিকোণ’-এর শ্যুটিং এখনও শুরু হয়নি।

এই ছবিতে কিশোরকণ্ঠী গায়কের ভূমিকায় অভিনয় করবেন তিনি। দুঃখ, ঝড়-জল পেরিয়ে যাঁর জীবনের নিত্য সাধনা। প্রতিদিন গুরুপ্রণাম। সবচেয়ে বড় কথা, এই প্রথমবার এমন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি প্রসেনজিৎ।

প্রসেনজিৎ ও অর্পিতা, দু’জনেই অমর শিল্পীর অনুগামী। কিন্তু দু’জনে একই দিনে একই সময়ে আলাদা আলাদা ভাবে কেন সাংবাদিক সম্মেলন করলেন? হতে পারে প্রোডাকশন হাউস আলাদা, কিন্তু তাতে তো ঘোষণার সময় নির্ধারিত হতে পারে না!

না, গৃহযুদ্ধ নয়। শুরু হচ্ছে কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসব। তাই তাড়াতাড়ি নিজেদের কাজ সেরে নিয়েছেন। বেশি দেরি করতে চাননি কেউই। দর্শকের কাছে এটা তো ডবল পাওনা। তাই না?

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

16 + nineteen =