মিজানুর রহমান:

ইন্টারনেট ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে এখন থেকে দেশের যেকোন ব্যাংক গ্রাহক মিনিটের মধ্যেই নিজের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে অন্য ব্যাংক অ্যাকাউন্টে অর্থ স্থানান্তর করতে পারবেন। আগে এ সুবিধাটি শুধু কয়েকটি ব্যাংকের নিজস্ব ব্যাংকিং  চ্যানেলে চালু ছিল। এক ব্যাংক থেকে অন্য ব্যাংকে টাকা পাঠাতে সময় লাগতো কমপক্ষে ২৪ ঘন্টা।

২ নভেম্বর বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ব্যাংকে ন্যাশনাল পেমেন্ট সুইচ বাংলাদেশ (এনপিএসবি) এর মাধ্যমে আন্তঃব্যাংক ইন্টারনেট ব্যাংকিং ফান্ড ট্রান্সফার কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের ফলে এখন মিনিটের মধ্যেই যেকোন ব্যাংক থেকে যেকোন ব্যাংকে অর্থ স্থানান্তর করা যাবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এস এম মনিরুজ্জামান এই কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক এবং বিভিন্ন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকরা উপস্থিত ছিলেন।

নতুন এ সেবাটিকে বাংলাদেশের ব্যাংকিং ইতিহাসে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা হিসেবে উল্লেখ করেছেন ব্যাংকাররা।

বাংলাদেশ ব্যাংকের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এ ইন্টারনেট ব্যাংকিং ফান্ড ট্রান্সফার সুবিধা চালুর ফলে গ্রাহকরা এখন থেকে অ্যাকাউন্ট থেকে ডেবিট/ক্রেডিট কার্ডে, ডেবিট/ক্রেডিট কার্ড থেকে অ্যাকাউন্টে এবং অ্যাকাউন্ট থেকে অ্যকাউন্টে মুহূর্তের মধ্যেই অর্থ স্থানান্তর করতে পারবেন। তবে প্রথমিকভাবে এভাবে অর্থ স্থানান্তরের কিছু সীমা রাখা হয়েছে। একজন গ্রাহক প্রতিদিন সর্বোচ্চ ৫ বার এবং সর্বমোট দুই লাখ টাকা লেনদেন করতে পারবেন। একবারে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা পাঠানো যাবে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আন্তঃব্যাংক ইলেক্ট্রনিক পেমেন্টকে সহজতর করার জন্য ২০১২ মালের ২৭ ডিসেম্বর এনপিএসবি কার্যক্রম শুরু হয়। শুরুতে আন্তঃব্যাংক এটিএম লেনদেনের মাধ্যমে এনপিএসবি যাত্রা শুরু করে এবং পরবর্তীতে আন্তঃব্যাংক পিওএস লেনদেন অন্তর্ভুক্ত করা হয়। বর্তমানে দেশে পেমেন্ট কার্ড ব্যবসা পরিচালনাকারী ৫৩টি ব্যাংকের মধ্যে ৫১টি ব্যাংক এনপিএসবি-এর সদস্য।

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

1 × four =