শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে ২০১৩ সালে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ ক্রিকেটে শেখ জামালের হয়ে সেই ঝোড়ো ইনিংসটি খেলেছিলেন এলটন চিগুম্বুরা। আবাহনীর পেসার আলাউদ্দিন বাবুর শেষ ওভারে নিয়েছিলেন ৩৯ রান! লিস্ট ‘এ’-তে এক ওভারে সেটাই সর্বোচ্চ রান নেওয়ার রেকর্ড। জেপি ডুমিনির ওপর তাই মন খারাপ করতেই পারেন আলাউদ্দিন বাবু। ডুমিনি যে আরেকটু হলেই লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে এক ওভারে সবচেয়ে খরুচে বোলারের লজ্জা থেকে আলাউদ্দিনকে মুক্তি দিয়ে দিতেন!

কেপ কোবরাসের হয়ে বুধবার দক্ষিণ আফ্রিকার ঘরোয়া ওয়ানডে কাপে নাইটসের মুখোমুখি হয়েছিলেন ডুমিনি। মাঠ ছেড়েছেন ৩৭ বলে ৭০ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে। তার আগে নাইটসের বোলার এডি লেইয়ের ওপর রীতিমতো ঝড় বইয়ে দেন সংক্ষিপ্ত সংস্করণে প্রোটিয়া মিডল অর্ডারের এ স্তম্ভ। লেইয়ের এক ওভারে নিয়েছেন ৩৭ রান!

এর মধ্যে প্রথম চার বলেই চারটি ছক্কা হাঁকান ডুমিনি। পঞ্চম বলে এসেছে ২ রান। ওভারের শেষ ডেলিভারিটি ‘নো বল’ করে লেই নিজের দুর্গতি আরও বাড়ান। সে বলে অবশ্য বাউন্ডারি মেরে সুযোগের সদ্ব্যবহার করেছেন ৩৩ বছর বয়সী এ ব্যাটিং অলরাউন্ডার। আর শেষ বলে ছক্কা মেরে দক্ষিণ আফ্রিকার লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে এক ওভারে সর্বোচ্চ রান নেওয়ার রেকর্ড গড়েন ডুমিনি।

২০০৭ বিশ্বকাপে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে হার্শেল গিবসের গড়া এক ওভারে ৩৬ রান নেওয়ার কীর্তিকে টপকে গেলেন ডুমিনি। লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটের ইতিহাসে এটি এক ওভারে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান নেওয়ার কীর্তি। শীর্ষে জিম্বাবুয়ের এলটন চিগুম্বুরার ৩৯ রান, মানে আলাউদ্দিন বাবুর সেই ওভার!

আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ২৩৯ রানের স্কোর গড়েছিল নাইটস। জবাবে ৩৬তম ওভার শেষে ৮ উইকেট হাতে নিয়ে জয় থেকে ৩২ রানের দূরত্বে ছিল কোবরাস। এমন নিশ্চিত ভিত পাওয়ায় পরের ওভারেই ৩৭ রান নিয়ে ম্যাচ শেষ করে দেন টেস্ট ছেড়ে সংক্ষিপ্ত সংস্করণে মনোযোগ দেওয়া ডুমিনি।

আরও পড়ুনঃ   শীর্ষে উঠলেন ফিঞ্চ-ইমাদ; শীর্ষেই রয়েছেন সাকিব

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

four × 4 =