বর্তমান অবস্থায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার যোগ্য নন। খালেদা জিয়ার নির্বাচনে অংশ নেওয়ার বিষয়টি উচ্চ আদালতের সিদ্ধান্তের ওপর নির্ভর করবে।

আজ সোমবার দুপুরে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের সঙ্গে তাঁর কার্যালয়ে সৌজন্য সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা।

সিইসি বলেন, খালেদা জিয়া যদি আপিল করেন এবং আদালত যদি তাঁকে নির্বাচনে অংশ নেওয়ার সিদ্ধান্ত দেন, তবে সে ক্ষেত্রে তিনি নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন।

প্রধান বিচারপতির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতের আগে সিইসিকে স্বাগত জানান সুপ্রিম কোর্টের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার জেনারেল জাকির হোসেন। রেজিস্ট্রার জেনারেল জানান, প্রধান বিচারপতির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতের জন্যই প্রধান নির্বাচন কমিশনার সুপ্রিম কোর্টে এসেছেন।

৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫-এর বিচারক জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় রায় ঘোষণা করেন। আদালত বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছর এবং তাঁর জ্যেষ্ঠ পুত্র দলটির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান, মাগুরার সাবেক সাংসদ কাজী সালিমুল হক কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভাগনে মমিনুর রহমানকে ১০ বছর করে কারাদণ্ড এবং ২ কোটি ১০ লাখ টাকা করে জরিমানার রায় দেয়। রায় ঘোষণার পর থেকে রাজধানীর পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারে রয়েছেন খালেদা জিয়া।

Comments

comments

আরও পড়ুনঃ   বঙ্গবন্ধু অন্যতম শ্রেষ্ঠ নেতা: তুর্কি প্রধানমন্ত্রী

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

6 + eighteen =