নাম তার ফ্রিদা। জাতে ল্যাব্রাডর। কুকুরটি কাজ করে মেক্সিকো নৌবাহিনীতে। বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগে তল্লাশি ও উদ্ধার অভিযানে অংশ নিয়ে মানুষের জীবন রক্ষা করা তার কাজ। এ পর্যন্ত অন্তত ৫২ জনের জীবন বাঁচিয়েছে সে। বিবিসি।খবরে বলা হয়, সম্প্রতি মেক্সিকোয় আঘাত হানা ভয়াবহ ভূমিকম্পে উদ্ধার অভিযানের পর ফ্রিদা এখন স্থানীয় মানুষের কাছে ‘নায়িকা’ হিসেবে পরিচিত। দুই সপ্তাহ আগে মেক্সিকোয় ৭ দশমিক ১ মাত্রার ভূমিকম্প আঘাত হানে। এতে ২৫০ জন প্রায় হারায়। এর পর ফ্রিদা ও তার সঙ্গী কুকুরদের ধ্বংসস্তূপের নিচ থেকে জীবিত ব্যক্তিদের উদ্ধারের জন্য নিয়োজিত করে মেক্সিকো নৌবাহিনী।

ফ্রিদা প্রথম সবার নজরে আসে উদ্ধার অভিযানে গিয়ে। চোখে গগলস পরা, পিঠে খাকি কাপড় জড়ানো আর চার পায়ে জুতা পরা অবস্থায় তাকে দেখা যায়। সাত বছর বয়সী এই কুকুরটি ধ্বংসস্তূপের নিচ থেকে একজন পুলিশ কর্মকর্তা ও আরও কয়েকজনকে উদ্ধার করে। এর পর ফ্রিদার সাহসিকতা নিয়ে মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট এনরিক পি নিয়েতো এক টুইট বার্তায় লেখেন, ‘এ হলো ফ্রিদা। সে নৌবাহিনীর হয়ে বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগে দেশে এবং বিদেশে ৫২ জনের জীবন বাঁচিয়েছে।’উদ্ধার অভিযানের পর থেকে ফ্রিদাকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক আলোচনা চলছে। অনেকে পরামর্শ দিচ্ছেন, মেক্সিকোর ৫০০ পেসোর নোটে বিখ্যাত চিত্রকর ডিয়েগো রিভেরার ছবির জায়গায় ফ্রিদার ছবি যুক্ত করা হোক। মেক্সিকোর ‘এল হেরাল্ডো ডি মেক্সিকো’ একটি নিবন্ধ ছেপেছে, যেখানে বলা হয়েছে ফ্রিদা উদ্ধারকারী দলে নতুন যুক্ত এক থেকে পাঁচ বছর বয়সী কুকুরদের প্রশিক্ষণও দেয়।

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

4 − two =