নাম মোহাম্মাদ বিন সালমান। সৌদি আরবের বর্তমান বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজের তৃতীয় স্ত্রীর বড় সন্তান তিনি।

বর্তমান ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের জন্ম ১৯৮৫ সালের ৩১ আগস্ট। বর্তমানে বয়স ৩২ বছর।

২০১৫ সালে তার বাবা বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ সৌদি আরবের বাদশহা হওয়ার পর তিনি আলোচনায় আসতে শুরু করেন।

গত জুলাই মাসে কাতারের ওপর সৌদি জোটের নিষেধাজ্ঞার পর থেকে মধ্যপ্রাচ্যের তথা মুসলিম বিশ্বের রাজনীতিতে প্রবল ক্ষমতাধর ব্যক্তি হিসেবে আবির্ভূত হন মোহাম্মদ বিন সালমান।

কাতারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের কয়েক দিন পরেই সৌদি বাদশাহ সালামন বিন আব্দুল আজিজ প্রায় এক মাসের ছুটিতে যান। পরিস্থিতি সামাল দিতে ছেলে মোহাম্মদ বিন সালমানের হাতে দায়িত্ব দিতেই তিনি ছুটিতে যান বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন।

কয়েক দিন আগে এক সম্মেলনে সৌদি আরবে মেগা সিটি করার পরিকল্পনা প্রকাশ করে আবার আলোচনায় আসেন ক্রাউন প্রিন্স।

সর্বশেষ রোববার দেশটির ১১ রাজপুত্র ও চার মন্ত্রীসহ প্রায় দুই ডজন সাবেক মন্ত্রীকে গ্রেফতারের পর সৌদি আরবের একচ্ছত্র ক্ষমতাধর ব্যক্তি মোহাম্মদ বিন সালমানের নাম সর্বত্র আলোচিত হচ্ছে।

মোহাম্মদ বিন সালমানকে ক্রাউন প্রিন্স পদে আসীন করেন তার বাবা এবং সৌদি আরবের বর্তমান বাদশাহ সালমান। এর আগে এ পদ থেকে সরিয়ে দেয়া হয়েছিল মোহাম্মদ বিন সালমানের চাচাতো ভাই মোহাম্মদ বিন নায়েফকে।

ক্রাউন প্রিন্স হিসেবে যিনি আসীন হন, পরবর্তী সময়ে তিনিই হবেন সৌদি আরবের বাদশাহ।

সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে অবস্থিত কিং সৌদ ইউনিভার্সিটি থেকে তিনি আইন শাস্ত্রে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন।

২০০৯ সালে মোহাম্মদ বিন সালমানকে তার বাবার বিশেষ উপদেষ্টা হিসেবে নিয়োগ করা হয়। সালমান বিন আব্দুল আজিজ তখন রিয়াদের গভর্নর ছিলেন।

২০১৩ সাল থেকে মোহাম্মদ বিন সালমান ক্ষমতার কেন্দ্রে আসতে শুরু করেন। তখন তাকে মন্ত্রীর মর্যাদায় ক্রাউন প্রিন্স কোর্টের প্রধান হিসেবে নিয়োগ করা হয়।

মোহাম্মদ বিন সালমান ২০৩০ সালকে লক্ষ্য করে সৌদি আরবের সামাজিক এবং অর্থনৈতিক পরিবর্তনের জন্য ব্যাপক পদক্ষেপ ঘোষণা করেন।

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

3 × 5 =