তথ্যমন্ত্রী ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেছেন, নির্বাচন ও গণতন্ত্রের মুখোশ পরে নির্বাচন বানচাল করতেই সহায়ক সরকারের প্রস্তাব দিয়েছেন খালেদা জিয়া। তিনি দুর্নীতি-সন্ত্রাসের বিচার থেকে নিজেকে রক্ষা করতে নির্বাচনকে দরকষাকষির হাতিয়ার বানাতে চান।
ঢাকার রমনায় ইঞ্জিনিয়ারস ইন্সটিটিউশন প্রাঙ্গণে বুধবার বিকেলে জাসদের ‘নির্বাচন বানচালের চক্রান্ত মোকাবিলা’ শীর্ষক সমাবেশ ও র‌্যালিতে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন জাসদ সভাপতি ইনু।
হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘দেশ যখন সাংবিধানিক প্রক্রিয়ায় নির্বাচনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে, তখন বিএনপি ও খালেদা জিয়া গণতন্ত্র- নির্বাচনের মুখোশ পরে ‘সহায়ক সরকারের ফাঁদ’ পেতে তা বানচাল করতে চায়। মনে রাখতে হবে, নির্বাচন কোনো দরকষাকষির হাতিয়ার নয়।’
এ অবস্থায় দেশের সামনে চারটি চ্যালেঞ্জ রয়েছে উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘নির্বাচন বানচালের চক্রান্ত মোকাবিলা, যথাসময়ে নির্বাচন অনুষ্ঠান, বিএনপি-খালেদা-জঙ্গি-রাজাকার চক্রকে ক্ষমতার বাইরে রাখা ও উন্নয়নের ধারা এগিয়ে নেয়াই এখনকার সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ।’
তিনি বলেন, ‘দেশবাসীকে ঐক্যবদ্ধভাবে এ চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে যথাসময়ে নির্বাচন অনুষ্ঠান ও বিএনপি-খালেদা-জঙ্গি-রাজাকার চক্রকে ক্ষমতার বাইরে রাখতে হবে এবং একাজে জাসদ থাকবে সামনে।’
জাসদ সহসভাপতি ফজলুর রহমান বাবুলের সভাপতিত্বে দলীয় নেতাদের মধ্যে সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার এমপি, শওকত রায়হান, নূরুল আখতার, এড হাবিবুর রহমান শওকত প্রমুখ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন।
সমাবেশ শেষে লাল পতাকাশোভিত স্লোগানমুখর র‌্যালি রমনা থেকে পল্টনে গিয়ে সমাপ্ত হয়।

Comments

comments

আরও পড়ুনঃ   'তাহলে প্রধান বিচারপতিকে কেন এত অপমান করা হলো'

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

seventeen + 4 =