চাল ও পেঁয়াজের দাম স্বাভাবিক পর্যায়ে এসেছে বলে দাবি করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। আজ সোমবার জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তরে বাণিজ্যমন্ত্রী এই দাবি করেন। স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সোমবার বৈঠকের শুরুতে প্রশ্নোত্তর অনুষ্ঠিত হয়।
সরকারি দলের সাংসদ সুবিদ আলী ভূইয়ার এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, চালের দাম বেড়েছিল। কারণ উত্তরাঞ্চল ও হাওরাঞ্চলে বন্যায় ফসলহানি হয়েছিল। মৌসুম এলেও দাম কমেনি এটা ঠিক নয়। চালের দাম কমাতে বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে তোফায়েল বলেন, চালের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৯ টাকা। তিনি বলেন, ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি করা হয়। এবার বন্যার কারণে সেখানে উৎপাদন কম হয়েছে। বাংলাদেশেও বন্যার কারণে উৎপাদন কম হয়েছে। পেঁয়াজের দাম ১০০ টাকার ওপর থেকে এখন ৫৫ থেকে ৬০ টাকায় নেমে এসেছে। চাল ও পেঁয়াজের দাম ধীরে ধীরে স্বাভাবিক পর্যায়ে নেমে এসেছে।
সরকারি দলের আরেক সাংসদ মো. আবদুল্লাহর প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, সরকারের উদ্যোগ ও দেশে নতুন পেঁয়াজের উৎপাদন শুরু হওয়ায় স্থানীয় বাজারে পেঁয়াজের দাম স্বাভাবিক পর্যায়ে পৌঁছেছে।
সংরক্ষিত মহিলা আসনের সদস্য লুৎফা তাহেরের প্রশ্নের জবাবে খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম বলেন, বিশ্ববাজারে খাদ্যের দাম কমার সঙ্গে সঙ্গে বাংলাদেশেও খাদ্যশস্যের দাম কমছে এবং বর্তমানে স্থিতিশীল পর্যায়ে আছে। বর্তমানে চালের দাম প্রতি কেজিতে ৪ থেকে ৭ টাকা কমেছে এবং আটার দাম সর্বনিম্ন পর্যায়ে রয়েছে।

সূত্র ঃ প্রথম আলো

Comments

comments

আরও পড়ুনঃ   সরকার কোনভাবেই কর্মবিমুখ জাতি গড়ে তুলতে চায় না

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

19 + 12 =