বাচ্চার জন্মের সময় আমরা সাধারণত সকলেই তারা চেহারাটি দেখার জন্য মুখিয়ে থাকি। কিন্তু সেই চেহারা ছাড়াই যদি বাচ্চা জন্ম নেয় তাহলে কী হবে?

এমনটাই ঘটেছে ব্রাজিলের এই মেয়েটির বেলায়। যে মুখাবয়ব ছাড়াই জন্ম নিয়েছিল। তার জন্মের পরপরই ডাক্তাররা জানিয়েছিল শিশুটি কয়েক ঘন্টার বেশি বাঁচবে না।

নয় বছর আগে এমনটাই ঘটেছে। আর সেই মেয়েটি এবার তার নবম জন্মদিন পালন করছে।

মেয়েটির নাম ভিটোরিয়া মারচিওলি। তারা জন্ম ব্রাজিলের বারা যে সাও ফ্রান্সিসকো। ‘ট্রিচার কলিনস সিন্ড্রোম’ নামের একটি জিনগত ত্রুটি নিয়ে জন্মেছিল সে। এই সমস্যার কারণে তার মুখের ৪০টি হাড় যথাযথভাবে বেড়ে ওঠেনি।

তার চোখ, মুখ এবং নাক ছিল স্থানচ্যুত।

জন্মের পরপরই তার এই অবস্থা দেখে ডাক্তাররাও আঁতকে ওঠেন। তারা তাকে ছুঁতেও ভয় পান। তারা ঘোষণা করে সে কয়েকঘন্টার বেশি বাঁচবে না। এমনকি তারা তাকে খাবার খাওয়াতেও চায়নি। এবং তার পরিবারকে বাড়িতে ফিরে গিয়ে তার মৃত্যুর জন্য অপেক্ষা করতে বলেন।

কিন্তু তার বাবা-মা তাকে বাঁচিয়ে রাখার সিদ্ধান্ত নেন। বাবা-মার ভালোবাসা এবং যত্নের কারণেই সে এখনো বেঁচে আছে।

মেয়েটির বাবা-মা রোনাল্ডো জানান, যেই ডাক্তাররা বলেছিল আমাদের মেয়েটি বাঁচবেনা তারা এখন ব্যাখ্যা করতে পারছে না কেন আমাদের মেয়েটি বেঁচে আছে। তবে তাদের বিশ্বাস আমাদের ভালোবাসা এবং যত্নের কারণেই সে বেঁচে আছে। আমরা তার চিকিৎসার জন্য একটি সাহাজ্য তহবিল গঠন করব। এবং আশা করছি তাকে আরো উন্নত জীবন-যাপন করার সুযোগ করে দিব। এবং চিকিৎসার মাধ্যমে তাকে সবচেয়ে সুন্দর চেহারাটি দান করব।

সূত্র: বোল্ড স্কাই

Comments

comments

আরও পড়ুনঃ   চলতি সপ্তাহে ইরানের প্রেসিডেন্ট রোহানি ভারত সফর করবেন

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

14 − 10 =