উত্তর কোরিয়া জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা না মেনে দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানে কয়লা রপ্তানি করেছে। রাশিয়ার সমুদ্রবন্দর ব্যবহার করে গত বছর কমপক্ষে তিনবার দেশ দুটিতে কয়লা রপ্তানি করা হয়। পশ্চিম ইউরোপীয় তিনটি গোয়েন্দা সূত্র এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছে।

রয়টার্সের খবরে জানানো হয়, জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে উত্তর কোরিয়া গত বছর রাশিয়ার কাছে জাহাজে করে যে কয়লা সরবরাহ করে, পরবর্তী সময়ে দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানকে তা হস্তান্তর করা হয়।

গত বছরের ৫ আগস্ট উত্তর কোরিয়াকে নতুন করে চাপে ফেলতে কয়লা রপ্তানির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ। মূলত উত্তর কোরিয়ায় বৈদেশিক মুদ্রার সরবরাহ কমাতেই এই সিদ্ধান্ত নেয় নিরাপত্তা পরিষদ, যাতে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালাতে সংকটে পড়ে দেশটি। নতুন নিষেধাজ্ঞা জারির পর থেকে এ পর্যন্ত কমপক্ষে তিনবার রাশিয়ার ‘নাখোদকা’ ও ‘খোলমস্ক’ বন্দরে জাহাজে করে কয়লা সরবরাহ করেছে সমাজতান্ত্রিক উত্তর কোরিয়া।

ইউরোপিয়ান নিরাপত্তা সংস্থা বলেছে, উত্তর কোরিয়ার কয়লা রপ্তানিতে রাশিয়ার সমুদ্রবন্দর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। রাশিয়ার পররাষ্ট্র বিভাগের পক্ষ থেকে এখনো এ অভিযোগের বিষয়ে কোনো মন্তব্য করা হয়নি।
পশ্চিমা একটি সূত্র জানিয়েছে, গত বছরের অক্টোবরে পৃথকভাবে কিছু কার্গো জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ায় পৌঁছে। যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সূত্র নিশ্চিত করেছে যে রাশিয়া দিয়ে কয়লা রপ্তানি চলছে। নিষেধাজ্ঞা আইনবিষয়ক বিশেষজ্ঞ জাতিসংঘের দুই আইনজীবী জানান, এই লেনদেন জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞাকে অমান্য করেছে।

Comments

comments

আরও পড়ুনঃ   মিয়ানমারে অনেক রোহিঙ্গাকে হত্যা করে পাঁচটি স্থানে গণকবর

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

three × two =