জিরোনার মাঠে প্রথম গোলটি রিয়াল মাদ্রিদ করলেও শেষ পর্যন্ত স্প্যানিশ জায়ান্টদের কাছ থেকে ২-১ গোলের জয় ছিনিয়ে নিয়েছে স্বাগতিকরা।

ম্যাচে জিরোনার হয়ে গোল করেন ক্রিস্তিয়ান স্টুয়ানি ও ক্রিস্তিয়ান পর্তু। অন্যদিকে রিয়ালের হয়ে একমাত্র গোলটি করেন ইসকো।

ম্যাচের প্রথম থেকেই ঘরের মাঠে দারুণ খেলতে থাকে জিরোনা। ৮ মিনিট ও ১১ মিনিটে দুটি দুর্দান্ত আক্রমণ করলেও প্রথম গোলটি পায় রিয়াল মাদ্রিদ। ১২ মিনিটে দলকে লিড এনে দেন ইসকো। করিম বেনজেমার পাস থেকে ডি-বক্সের বাহির থেকে ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর জোরালো শটটি গোলরক্ষক ফেরালেও বল পেয়ে যান ইসকো। আর তাতে আলতো টোকায় গোল করেন এই স্প্যানিশ মিডফিল্ডার।

এরপর আক্রমণে চড়াও হয় মাদ্রিদ। বেশ কয়েকটি সুযোগ পেলেও তা কাজে লাগাতে পারেনি অতিথি দল। ফাঁকে ফাঁকে দারুণ কিছু আক্রমণ করেছে স্বাগতিকরাও। তবে ভাগ্য যেন তাদের বিরূপ আচরণ করছিল। বারপোস্টে লেগে ফিরে এসেছে বেশ কয়েকটি বল। তাই প্রথমার্ধে আর কোন গোল হয়নি।

দ্বিতীয়ার্ধের ৫৪ মিনিটে দলকে সমতায় ফেরান ক্রিস্তিয়ান স্টুয়ানি। স্বাগতিকদের মিডফিল্ডার পেরে পন্স ড্রিবলিং করে বল ডি-বক্সে নিয়ে পাস দেন স্টুয়ানিকে। মাঝপথে বল নাচোর পায়ে লাগলেও বল পৌঁছায় তার কাছে। সেও দুই পায়ে কারুকুরি দেখিয়ে জোরালো এক শটে গোল করেন।

এর ঠিক ৪ মিনিট পরেই এবার লিড নিয়ে নেয় জিরোনা। দলকে লিড এনে দেন ক্রিস্তিয়ান পর্তু। ক্রিস্তিয়ান স্টুয়ানির একটি শট রিয়াল গোলরক্ষক কিকো ক্যাসিয়া ঠেকিয়ে দিলেও বল পেয়ে যান পাবলো মাফেয়ো। তার করা ফিরতি শটেই ব্যাকহিল টাচে গোল করেন পর্তু।

এরপর মাদ্রিদ বেশ কয়েকবার গোল করার চেষ্টা করে তবে প্রতিপক্ষের রক্ষণ ও গোলরক্ষকের কারণে প্রতিবারই ব্যর্থ হয়। ম্যাচে আর কোন গোল না হলে শেষ পর্যন্ত ২-১ গোলের হারে নিয়েই মাঠ ছাড়তে জিদানের শিষ্যদের।

এই হারের পর লা লিগায় ১০ ম্যাচে ২০ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের তৃতীয় স্থানে অবস্থান করছে রিয়াল মাদ্রিদ। সমান সংখ্যক ম্যাচ খেলে ২৮ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে চিরপ্রতিদ্বন্দী বার্সেলোনা। বার্সার চেয়ে চার পয়েন্ট কম নিয়ে দ্বিতীয়তে আছে ভ্যালেন্সিয়া।

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

12 + three =