টানা তৃতীয় দিনের মতো অচলাবস্থা বিরাজ করছে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় সরকারে। সরকারি সেবাখাতগুলোর বেশির ভাগই রয়েছে বন্ধ। এর ফলে মারাত্মক দুর্ভোগে সাধারণ মানুষ। অন্যদিকে অচলাবস্থা নিরসনে রাজনৈতিক তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে। রোববার শেষ রাত পর্যন্ত এ চেষ্টায় কোনো ফল আসে নি। ফলে আজ সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় দুপুর ১২টায় নতুন করে ভোট হবে সিনেটে।

তাতে সরকারি কর্মকান্ডকে সচল করা হবে কিনা সে বিষয়ে ভোট দেবেন সিনেটররা। তবে এখন পর্যন্ত সে ভোটের ফল কি হবে তা স্পষ্ট নয়। এ খবর দিয়েছে অনলাইন সিএনএন ও বিবিসি। এতে বলা হয়, কেন্দ্রীয় সরকারের সম্প্রসারিত একটি নতুন বাজেট পাস করতে ব্যর্থ হয় সিনেট গত শুক্রবার। এর ফলে শুক্রবার মধ্যরাত থেকে সেখানে সরকারি কর্মকা- অচল হয়ে পড়েছে। অনেক প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। কর্মকর্তা, কর্মচারিদের বাসায় থাকতে বলা হয়েছে। তবে বাজেট পাস না হওয়া পর্যন্ত কাউকে কাউকে বিনা বেতনে দায়িত্ব পালন করতে বলা হয়েছে। অভিবাসন বিষয়ক কর্মসূচিকে সামনে রেখে সিনেটে রিপাবলিকান ও ডেমোক্রেটরা বিভক্ত হয়ে পড়েছেন। ট্রাম্পের অভিবাসন কর্মসূচি বাতিল করা যায় কিনা তা নিয়ে একটি প্রস্তাব নিয়ে কাজ করছেন সিনেটে রিপাবলিকান নেতা মিচ ম্যাককনেল। তিনি আশা করছেন এর মধ্য দিয়ে ডেমোক্রেটদেরকে সমঝোতার টেবিলে আনা যেতে পারে। স্থানীয় সময় রোববার দিবাগত রাত একটায় এ বিষয়ে একটি বিল সিনেটে উত্থাপন করার কথা ছিল। কিন্তু যখন স্পষ্ট হয়ে যায় তাতে বাধা সৃষ্টি করবেন ডেমোক্রেটরা তখন ওই ভোট সোমবার দুপুরে করার কথা বলা হয়েছে। এর অর্থ হলো সোমবারও যুক্তরাষ্ট্রে কেন্দ্রীয় সরকারের বহু অফিস বন্ধ থাকছে। সপ্তাহান্তের পুরোটা সময় এ নিয়ে সিনেট বিরল অধিবেশন করেছে। কিন্তু তারা সপ্তাহ শুরুতে কোনো ঐকমত্যে আসতে ব্যর্থ হয়েছে। তারা এ ব্যর্থতার জন্য একে অন্যকে দায়ী করছে। ফলে সমঝোতায় পৌঁছার সম্ভাবনা খুবই কম।

আরও পড়ুনঃ   রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানো যাবে না: ভারতীয় সুপ্রিমকোর্ট

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

1 × 5 =