লন্ডনে নতুন মার্কিন দূতাবাস নির্মাণের বিষয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করে আসন্ন যুক্তরাজ্য সফর বাতিল
করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। তিনি লন্ডনে দূতাবাসের পুরাতন ভবনটি বিক্রি করে দেয়ার জন্য ওবামা প্রশাসনকে দোষারোপ করেন। ট্রাম্প এই বিষয়টিকে ‘খারাপ সিদ্ধান্ত’ আখ্যা দেন। এ খবর দিয়েছে আল জাজিরা। খবরে বলা হয়, আগামী মাসে ডনাল্ড ট্রাম্পের যুক্তরাজ্য সফরে যাওয়ার কথা ছিল। এ সময় লন্ডনে নবনির্মিত মার্কিন দূতাবাস উদ্বোধন করার কথা ছিল তার।

কিন্তু শুক্রবার দূতাবাস নির্মাণের বিষয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেন ট্রাম্প। তিনি গ্রসভেনর স্কয়ারে অবস্থিত দূতাবাসের পুরাতন ভবনটি ‘বাদামের’ বিনিময়ে বিক্রি করে দেয়ার জন্য ওবামা প্রশাসনকে দোষারোপ করেন।
২০০৮ সালে প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশের শাসনামলে দূতাবাসের ভবন পরিবর্তনের আলোচনা শুরু হয়। পরে ওবামা প্রশাসন এটা বাস্তবায়ন করে। লন্ডনের দক্ষিণ-পূর্ব অঞ্চলে ব্যাটারসি পাওয়ার স্টেশনের কাছে নতুন ভবন তৈরি করা হয়। এতে খরচ হয় ১২০ কোটি ডলার। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের আসন্ন সফরে এটি উদ্বোধন করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। মার্কিন সরকার সূত্রে জানা গেছে, ট্রাম্প ভবন উদ্বোধন করতে অস্বীকৃতি জানানোর ফলে এখন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন তা উদ্বোধন করবেন। এদিকে, লন্ডনের মেয়র সাদিক খান বলেন, লন্ডন সফরে আসলে ট্রাম্প বিক্ষোভের মুখে পড়তেন। তিনি লন্ডনবাসীদের বার্তা পেয়েছেন। লন্ডনের অধিবাসীরা আমেরিকা ও আমেরিকার অধিবাসীদের ভালোবাসে ও সম্মান করে। কিন্তু দেখা যাচ্ছে, দেশটির নীতি ও কার্যক্রম লন্ডন শহরের মূল্যবোধ, বৈচিত্র্যতা ও সহিষ্ণুতার পুরোপুরি বিপরীত। এছাড়া, বৃটিশ লেবার পার্টির প্রভাবশালী সদস্য ডেভিড ল্যামি ট্রাম্পের উদ্দেশ্যে টুইট করেন, ‘অবশেষে আপনি এই বার্তা পেয়েছেন যে, আপনি লাখ লাখ মানুষের বিক্ষোভের মুখোমুখি হবেন।’

Comments

comments

আরও পড়ুনঃ   উ. কোরিয়ার বিরুদ্ধে ট্রাম্পের নতুন আদেশ

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

three × 1 =