ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) শেয়ার বিক্রি নিয়ে চীন ও ভারতের টানাটানি এখনো চলছে। ডিএসইর মালিকানার অংশীদার হতে দুটি দেশের প্রতিষ্ঠানের আলাদা দুটি জোট মুখোমুখি অবস্থানে। এ অবস্থায় ডিএসইর অংশীদার কে হচ্ছে, এটিই এখন শেয়ার বাজারের অন্যতম আলোচিত বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

চীনের সেনজেন ও সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জ মিলে একটি কনসোর্টিয়াম বা জোট গঠন করেছে। অন্যদিকে ভারতের ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জ (এনএসই), যুক্তরাষ্ট্রের নাসডাক ও বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান ফ্রন্টিয়ার বাংলাদেশ মিলে গঠন করেছে অপর একটি জোট। এ দুই জোটের মধ্যে দরপ্রস্তাবে এগিয়ে রয়েছে চীনের সেনজেন ও সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জ জোটটি। ডিএসইর পরিচালনা পর্ষদও এই জোটটিকে তাদের মালিকানার অংশীদার করতে চায়। আর ভারতের এনএসইর নেতৃত্বে গঠিত জোটটি দরপ্রস্তাবে পিছিয়ে থেকে এখন নানাভাবে চাপ তৈরি করে ডিএসইর অংশীদার হতে চায়।

কৌশলগত বিনিয়োগকারীর কাছে শেয়ার বিক্রিসংক্রান্ত প্রস্তাব চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য গতকাল বৃহস্পতিবার পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) কাছে জমা দিয়েছে ডিএসই। এ প্রস্তাব যাচাই-বাছাইয়ের জন্য গতকালই জরুরি সভা করে চার নির্বাহী পরিচালকের সমন্বয়ে একটি কমিটি করেছে বিএসইসি। সংস্থাটির নির্বাহী পরিচালক ফরহাদ আহমেদকে প্রধান করে গঠিত এই কমিটিকে ১০ কার্যদিবসের মধ্যে কমিশনের কাছে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

Comments

comments

আরও পড়ুনঃ   তিতাস গ্যাসের লভ্যাংশ ঘোষণা

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

1 × four =