দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে টেস্ট সিরিজ জিততে না পারার আক্ষেপ ঘুচানোর মিশন নিয়ে আগামীকাল মাঠে নামছে সফরকারী ভারত। ১৯৯২ সাল থেকে এখন পর্যন্ত প্রোটিয়াদের মাটিতে ছয়টি সিরিজে অংশ নিয়ে একটিও জিততে পারেনি টিম ইন্ডিয়া। তাই এবার দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে প্রথমবারের মতো সিরিজ জয়ের লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে বিরাট কোহলির দল। কেপ টাউনে সিরিজের প্রথম ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বেলা আড়াইটায়।
১৯৯২ সাল প্রথমবারের মতো টেস্ট সিরিজে মুখোমুখি হয় ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকা। নিজেদের মাটিতে ভারতের বিপক্ষে প্রথম সিরিজ খেলে প্রোটিয়ারা। চার ম্যাচের ওই সিরিজটি ১-০ ব্যবধানে জিতে নেয় দক্ষিণ আফ্রিকা। এরপর দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে আরো পাঁচবার টেস্ট সিরিজে অংশ নেয় ভারত। এর মধ্যে চারটি সিরিজ হারে টিম ইন্ডিয়া। ২০১০ সালের সফরে তিন ম্যাচের সিরিজ ১-১ সমতায় শেষ করে মহেন্দ্র সিং ধোনির নেতৃত্বাধীন তৎকালীন ভারতীয় দলটি। তবে সর্বশেষ ২০১৩ সালের সফরে ভারতকে সিরিজ হারের স্বাদ থেকে রক্ষা করতে পারেননি ধোনি-কোহলিরা। দুই ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে হারে ভারত।
সিরিজ জিততে না পারার সাথে দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে খুব বেশি ম্যাচও জিততে পারেনি ভারত। ১৭ ম্যাচে অংশ নিয়ে মাত্র দুটিতে জয়, ৮টিতে হার ও ৭টি ম্যাচে ড্র করে টিম ইন্ডিয়া। ২০০৬ সালের সফরে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথমটিতে ১২৩ রানে জিতেছিলো রাহুল দ্রাবিড়ের নেতৃত্বাধীন ভারত। জোহানেসবার্গের টেস্ট জয়ের পর ডারবান ও কেপ টাউনে পরের দু’ম্যাচ হেরে সিরিজ হাতছাড়া করে ভারত। এরপর ২০১০ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে দ্বিতীয় জয় পায় ভারত। ডারবানে বক্সিং-ডে টেস্টে ৮৭ রানে জয় পায় ধোনিরা।
অতীতের এমন দুঃস্মৃতি ভুলে ভালো ফলের প্রত্যাশায় এবারের সিরিজ শুরু করতে যাচ্ছে ভারত। প্রথমবারের মতো দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে সিরিজ জয়ের কথা বললেন ভারতের মিডল-অর্ডার ব্যাটসম্যান আজিঙ্কা রাহানে, ‘দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে আমাদের অতীত রেকর্ড মোটেও ভালো নয়। তবে এসব নিয়ে আমরা চিন্তিত নই। চিন্তিত নই এখানকার কন্ডিশন নিয়ে। আমাদের পরিকল্পনা অনুযায়ী খেলতে পারলে লক্ষ্য পূরণ হবে। এবারের সফরে আমাদের লক্ষ্য দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে প্রথমবারের মতো টেস্ট সিরিজ জয় করা। প্রথমবার সিরিজ জয়ের স্বাদ নেয়ার জন্য দলের সবাই উদগ্রীব হয়ে আছে। নিজেদের প্রমাণ জন্য ছটফট করছে সকলে। আমরা এবার ভালো ফল অর্জন করতে সক্ষম হবো। কারণ, আমাদের আত্মবিশ্বাস এখন তুঙ্গে রয়েছে। এবারই সুযোগ এখানে ভালো কিছু অর্জন করা। এবারের দলটি অনেক বেশি ভারসাম্যপূর্ণ এবং ভালো পারফরমেন্স করতে সবাই ব্যকুল।’
নিজেদের মাটিতে ভারতের পারফরমেন্স ভালো না হলেও প্রতিপক্ষকে সমীহ করছেন দক্ষিণ আফ্রিকার ওপেনার ডিন এলগার। তিনি বলেন, ‘এখানে ভারতের অতীত রেকর্ড তেমন একটা ভালো নয়। মাত্র ২টি ম্যাচ জিততে পেরেছে তারা। তবে এবারের ভারতের দলটি অনেক বেশি শক্তিশালী। তারা চ্যালেঞ্জ নিতে জানে। বিশ্বসেরা দল হয়েই সিরিজ শুরু করতে যাচ্ছে ভারত। তবে আমরাও প্রস্তুত। ভারতকে কঠিন পরীক্ষার মধ্যে ফেলতে চাই এবং পুরো সিরিজে আমরা ভালো ফল অর্জন করতে চাই।’
দক্ষিণ আফ্রিকা দল : ফাফ ডু-প্লেসিস(অধিনায়ক), হাশিম আমলা, টেম্বা বাভুমা, কুইন্টন ডি কক, তিউনিস ডি ব্রুইয়ান, এবি ডি ভিলিয়ার্স, ডিন এলগার, কেশব মহারাজ, আইডেম মার্করাম, মরনে মরকেল, ক্রিস মরিস, আন্ডিল ফেলুকুয়াও, ভারনন ফিলান্ডার, কাগিসো রাবাদা ও ডেল স্টেইন।
ভারত দল : বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), রবিচন্দ্রন অশ্বিন, জসপ্রিত বুমরাহ, শিখর ধাওয়ান, রবীন্দ্র জাদেজা, ভুবনেশ্বর কুমার, হার্ডিক পান্ডিয়া, পার্থিব প্যাটেল, চেতেশ্বর পুজারা, আজিঙ্কা রাহানে, লোকেশ রাহুল, ঋদ্ধিমান সাহা, মোহাম্মদ সামি, ইশান্ত শর্মা, রোহিত শর্মা, মুরালি বিজয়, উমেষ যাদব।

আরও পড়ুনঃ   আজও ফিল্ডারদের ব্যর্থতার সুযোগ নিয়েছে শ্রীলঙ্কা

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

twenty − fifteen =