সাহিদুর রহমান, ইসলামপুর: একাদশ সংসদ নির্বাচনে জামালপুর-২ (ইসলামপুর) আসনে দলীয় মনোনয়নপ্রত্যাশী বিএনপির একক ও আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা গণসংযোগে ব্যস্ত সময় পার করছেন। তারা বিভিন্ন স্থানে ডিজিটাল ব্যানার, সাইনবোর্ড ও পোস্টার লাগিয়ে ভোটারদের নজর কাড়ার চেষ্টায় আছেন। কেউ কেউ দলীয় মনোনয়ন নিশ্চিত করতে লবিং করছেন কেন্দ্রে।স্বাধীনতার পর সংসদ নির্বাচনে এ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আট বার, বিএনপির প্রার্থী একবার এবং জাতীয় পার্টির (এরশাদ) প্রার্থী একবার বিজয়ী হন। ফলে এ আসনে এখনো আওয়ামী লীগের আধিপত্যই বেশি বলে মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকমহল। এবার ইসলামপুর আসনে আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থী তিনজন। তারা হলেনÑ বর্তমান এমপি ফরিদুল হক দুলাল, মুক্তিযুদ্ধের সেক্টর কমান্ডার শহীদ ব্রিগেডিয়ার জেনারেল খালেদ মোশাররফের মেয়ে ও বর্তমান সংসদের প্যানেল স্পিকার মাহজাবিন খালেদ বেবী এমপি এবং জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা শাহজাহান আলী ম-ল।

মাহজাবিন খালেদ বেবী এমপি সংরক্ষিত আসনের এমপি হয়েও প্রতিনিয়ত ইসলামপুরের খোঁজখবর নিচ্ছেন। উপজেলা ও পৌর শহরসহ প্রতিটি ইউনিয়নে গ্রামে গ্রামে গিয়ে উঠান বৈঠক করে জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন কর্মকা- তুলে ধরছেন; সঙ্গে পাচ্ছেন দলের প্রবীণ ও ত্যাগী নেতাকর্মীদের।দুবারের এমপি ফরিদুল হক খান দুলাল ভূমিকা রেখেছেন এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকা-ে। তবে তার বিরুদ্ধে দলের প্রবীণ ও ত্যাগী নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন না করা, আত্মীয়করণ, স্বজনপ্রীতি, দলবাজি ও দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। তার দলীয় প্রতিপক্ষদের অভিযোগ, এমপি হওয়ার পরও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদের লোভ সামলাতে পারেননি দুলাল। তার কারণেই দলে কোন্দল দেখা দিয়েছে। ফলে সাংগঠনিকভাবে তিনি কিছুটা বেকায়দায় রয়েছেন। এ ব্যাপারে দুলাল আমাদের সময়কে বলেন, দলের পাশাপাশি এলাকার উন্নয়নে কাজ করতে গেলে অভিযোগ থাকবেই, সমালোচনা থাকবেই। এর মধ্যেই কাজ করে যেতে হবে।আওয়ামী লীগের অপর সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে এলাকায় পোস্টার ও সাইনবোর্ড টানিয়েছেন ঢাকার শাহজালাল বিমানবন্দর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টাম-লীর সদস্য শাহজাহান আলী ম-ল। সংসদ নির্বাচন এলেই সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে তাকে ইসলামপুরে দেখা যায়। তিনি সব সময় ঢাকায় অবস্থান করলেও বিগত দিনে উপজেলা আওয়ামী লীগের দুর্দিনে নেতাকর্মীদের পাশে দেখা গেছে তাকে।ইসলামপুর আসনে বিএনপির সম্ভাব্য একক প্রার্থী হিসেবে সাবেক এমপি সুলতান মাহমুদ বাবু মাঝেমধ্যেই ঢাকা থেকে এলাকায় এসে সাংগঠনিক কার্যক্রম জোরদার ও গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। বিগত চারদলীয় জোট সরকারের আমলে তিনি উপজেলার অসংখ্য রাস্তাঘাট, ব্রিজ-কালভার্ট ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন করেছেন।এ ছাড়াও বিশদলীয় জোটের শরিক জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নেতা সামিউল হক ফারুকী প্রার্থী হওয়ার চেষ্টায় আছেন বলে দলটির একাধিক সূত্রে জানা যায়। তবে তিনি মাঠে নেই।জাতীয় পার্টি (এরশাদ) থেকে এ আসনে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে ইসলামপুর উপজেলা শাখার আহ্বায়ক জিল্লুর রহমান বিপুর নাম শোনা যাচ্ছে।

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

12 + ten =