নিখোঁজ হওয়া নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক মোবাশ্বের হাসান সিজারকে উদ্ধার করতে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

আজ বুধবার ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সংস্কারকৃত অফিসের উদ্বোধন ও সদস্যদের পরিচয়পত্র প্রদান অনুষ্ঠান শেষে বের হওয়ার সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘কেউ নিখোঁজ হয়ে যাবে আর আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বসে থাকবে এটাতো কাম্য নয়। অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে। কেন নিখোঁজ হয়েছেন, কীভাবে নিখোঁজ হয়েছেন এবং তার উদ্ধারের প্রচেষ্টা আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী নেবে।’

মন্ত্রী আরো বলেন, নিখোঁজ হওয়ার পেছনে কিছু কারণ থাকে। অনেকে ইচ্ছা করে নিখোঁজ হন, অনেকে আত্মগোপন করে অনেককে বিব্রত করতে চান। এই ধরনের নিখোঁজ হলে গোয়েন্দাদের জন্য কষ্টকর হয়ে যায়।

গতকাল মঙ্গলবার সকালে রামপুরার নিজ বাসা থেকে বের হয়ে যাওয়ার পর আর ফেরেননি শিক্ষক মোবাশ্বের হাসান। সেদিন রাতে ফেরার কথা থাকলেও এখন পর্যন্ত তিনি নিখোঁজ। এ ঘটনায় মঙ্গলবার রাতেই খিলগাঁও থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন তার বাবা মোতাহার হোসেন।

এছাড়াও অভিজিৎ হত্যাকাণ্ডের তদন্ত সম্পর্কে জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, অভিজিৎ হত্যাকাণ্ড অনেকটা অধরায় রয়ে গিয়েছিল। কিন্তু আমাদের গোয়েন্দারা অত্যন্ত তৎপর। তারা সূত্র ধরতে ধরতে মূল আসামিকে ধরে ফেলেছেন। মূল আসামি অনেক তথ্য দিয়েছেন। সে তথ্যগুলো আমাদের গোয়েন্দা বাহিনী ধারাবাহিকভাবে কিছুদিনের মধ্যেই আপনাদের জানাবে। আমরা প্রতিদিনই নতুন তথ্য পাচ্ছি, সেগুলোও জানিয়ে দেয়া হবে।

সম্প্রতি পুলিশের কর্মকর্তারা চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন অপকর্মে জড়িয়ে যাচ্ছেন, এতে বাহিনীর ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হচ্ছে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘দেখুন আমরা কি সবাই মাথা উঁচু করে বলতে পারি যে, সবাই সবকিছুর ঊর্ধ্বে? লক্ষ্যণীয় বিষয় যারা অন্যায় করছে তারা পার পাচ্ছে কি না। তাদের বিচার হচ্ছে কি না, শাস্তি হচ্ছে কি না।  যারা অন্যায় করে, পুলিশ বাহিনী হোক কিংবা নিরাপত্তা বাহিনী কিংবা যেখানেই হোক কাউকে কিন্তু ক্ষমা করা হচ্ছে না। আমাদের সংসদ সদস্যরাওতো ক্ষমা পাচ্ছেন না। কাজেই যেই অন্যায় করুক, পুলিশ করুক যেই করুক কেউ ক্ষমা পাবে না।’

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

17 − 10 =