খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং নিরপেক্ষ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দাবি জোরদার করতে জেলা সফরে যাবেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা। শিগগিরই এ ব্যাপারে কেন্দ্র থেকে পৃথক দল গঠন করা হবে। গতকাল শনিবার গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে দলের কেন্দ্রীয় ও জ্যেষ্ঠ নেতাদের বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়।

বৈঠক সূত্র জানায়, দলের স্থায়ী কমিটি, ভাইস চেয়ারম্যান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও যুগ্ম মহাসচিবদের এই বৈঠকে দলের ঐক্য ও সংহতি অটুট রেখে খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং নিরপেক্ষ সরকারের অধীন নির্বাচনের দাবি আদায়ে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। সবাইকে একতাবদ্ধ থেকে একসুরে কথা বলার পরামর্শ দিয়ে বলা হয়, দল পরিচালনা ও নেতাদের ঐক্য নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে। ফাঁদে পা দেওয়া যাবে না। দলের জ্যেষ্ঠ নেতা খন্দকার মোশাররফ হোসেনের সভাপতিত্বে বৈঠকে অর্ধশত নেতা অংশ নেন। সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টা থেকে রাত নয়টা পর্যন্ত সভা হয়। বৈঠকে চেয়ারপারসনের সম্মানে সভাপতির আসন খালি রাখা হয়।

বৈঠক চলাকালে লন্ডনে অবস্থানরত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বক্তব্য মোবাইল ফোনে শোনানো হয়। মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের বলেন, তারেক রহমান দলের চেয়ারপাসনের মুক্তি ও গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থেকে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন। তাঁর বক্তব্য দলকে অনুপ্রাণিত করবে।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান প্রথম আলোকে বলেন, বিএনপির চেয়ারপারসন কারাগারে যাওয়ার আগে সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে কিছু বিষয়ে কথা বলে গেছেন। এই কথাগুলো উপদেষ্টা, ভাইস চেয়ারম্যান ও যুগ্ম মহাসচিবদের জানাতে মহাসচিব এই বৈঠক ডেকেছেন। বৈঠকে চেয়ারপারসনের মুক্তি এবং গণতন্ত্রের আন্দোলন জোরদার করতে পর্যায়ক্রমে জেলা পর্যায়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

বৈঠকে মহাসচিব ছাড়াও স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ, জমিরউদ্দিন সরকার, মাহবুবুর রহমান, রফিকুল ইসলাম মিয়া, মির্জা আব্বাস, আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান শাহজাহান ওমর, হাফিজউদ্দিন আহমেদ, চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, আলতাফ হোসেন চৌধুরী, বরকত ‍উল্লা, খন্দকার মাহবুব হোসেন, রুহুল আলম চৌধুরী, ইনাম আহমেদ চৌধুরী, আবদুল আউয়াল মিন্টু, শওকত মাহমুদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুনঃ   ডিএনসিসি উপনির্বাচন স্থগিত

আইনজীবী ফোরামের কর্মসূচি

খালেদা জিয়াসহ রাজনৈতিক নেতা-কর্মী ও সরকারের সমালোচকদের বিরুদ্ধে করা সব মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার এবং গণগ্রেপ্তারের প্রতিবাদে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম আজ রোববার থেকে ১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত প্রতিটি জেলায় আইনজীবী সমিতিতে প্রতিবাদ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। গতকাল সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন করে এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন ফোরামের মহাসচিব মাহবুব উদ্দিন।

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

4 × five =