একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগেই দেশের সকল ভোটারের হাতে উন্নতমানের জাতীয় পরিচয়পত্র বা স্মার্টকার্ড তুলে দেবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

ইসি সচিবালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ ২৩ নভেম্বর বৃহস্পতিবার আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

সচিব বলেন, ‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে সব ভোটারকে স্মার্টকার্ড দেওয়া হবে। যারা নিবন্ধিত হয়েছেন, কিন্তু এখনও কোনো পরিচয়পত্র পাননি। তাদেরকে লেমিনেটেড কার্ড দেওয়া হবে।

এ বছর ভোটার নিবন্ধন সম্পর্কে তিনি বলেন, এবার ভোটার তালিকা হালনাগাদে মোট ৩৩ লাখ ২৯ হাজার ১৯৯ জন ভোটার নিবন্ধিত হয়েছে। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৬ লাখ ৪১ হাজার ৪৮৪ জন এবং মহিলা ভোটার নিবন্ধিত হয়েছে ১৬ লাখ ৮৭ হাজার ৭১৫ জন।

তিনি জানান, ২০১৫ সালের আগাম তথ্যের ভিত্তিতে খসড়া ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হবে আরও ৯ লাখ ৬২ হাজার ২৯৬ জন। সব মিলিয়ে এবার ভোটার তালিকায় যুক্ত হবে ৪২ লাখ ৯১ হাজার ৪৯৫ জন ভোটার। এ ছাড়া এবার তালিকা থেকে মৃত ভোটার কর্তন করা হচ্ছে ১৫ লাখ ১৬ হাজার ৩৮ জন ভোটারের নাম। যা মোট ভোটার থেকে কর্তন করা হবে।

রাজনৈতিক দলের নিবন্ধনের শর্ত পূরণ বিষয়ক এক প্রশ্নের জবাবে হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টিসহ বেশ কয়েকটি দল সময় চেয়েছে। তাদের সময় দেওয়ার বিষয়টি কমিশন সভায় উপস্থাপন হবে। আর যারা জবাব দেননি, তাদেরকে আবারও তাগাদা দিয়ে চিঠি দেওয়া হবে।

এ দিকে কমিশন উপজেলা পর্যায়ে নির্ভুল স্মার্টকার্ড প্রদানের লক্ষ্যে বিশেষ ব্যবস্থায় জাতীয় পরিচয়পত্রের ভুল তথ্য সংশোধনের সুযোগ দিচ্ছে। আগামী ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত সংশোধনের আবেদন গ্রহণ করা হবে। কমিশনের পক্ষ থেকে এই সময়ের মধ্যে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

জেলা ও উপজেলা কর্মকর্তাদের কাছে ইসির পাঠানো এক চিঠিতে বলা হয়েছে, ইতোমধ্যে সব সিটি কর্পোরেশন ও জেলা সদরের স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র মুদ্রণ শেষ হয়েছে এবং বিতরণ কার্যক্রম চলছে। মুদ্রণের পর কারও কারও পরিচয়পত্রে ভুল আছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

আরও পড়ুনঃ   প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবুধাবিতে যাত্রাবিরতির পর আগামীকাল শনিবার দেশে ফিরবেন

ইতোপূর্বে একাধিকবার জাতীয় পরিচয়পত্রে ভুল সংশোধনের বিষয়ে বিশেষ সুযোগ প্রদান করা হয়েছে। তারপরেও যাদের জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্য ভুল আছে, কিন্তু ইতোপূর্বে সংশোধনের সুযোগ গ্রহণ করেননি, তাদেরকে পুনরায় সংশোধনের সুযোগ দিতে ইসি এই উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

19 − 18 =