বিশ্বের সেরা দুই ফুটবলারের নাম মেসি-রোনালদো। এরপরই নাম আসবে নেইমারের। কিন্তু বেতনের হিসাব নিতে গেলে মেসি তো বটেই, নেইমারেরও অনেক পেছনে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। টানা দ্বিতীয়বারের মতো ফিফা বেস্ট পুরস্কার জেতার পথে থাকা ফরোয়ার্ড কেন সেটা মানতে চাইবেন! এ কারণেই রিয়াল মাদ্রিদের কাছে দাবি জানিয়েছিলেন তাঁর বেতন বাড়ানোর। কিন্তু স্প্যানিশ জায়ান্টরা রোনালদোর এমন দাবি মানতে রাজি হয়নি।

চুক্তি হয়েছে কি হয়নি—এ নিয়ে সন্দেহ দূর হয়নি এখনো। তবে নতুন চুক্তি অনুযায়ী কর বাদে বার্ষিক ২৫ মিলিয়ন ইউরো বেতন পাওয়ার কথা লিওনেল মেসির। দলবদলের রেকর্ড গড়ে পিএসজিতে যাওয়া নেইমারের বেতনও ওরকমই। আর এবার তো দলবদলের পাগলাটে বাজারে সবাই বেতন বাড়িয়ে নিয়েছেন। কিলিয়ান এমবাপ্পের বেতন এক মৌসুমেই দশ গুণের বেশি বেড়েছে। রোনালদোও তাই চাইছেন নিজের বেতনটা এবার বাড়িয়ে নিতে।
কিন্তু রিয়ালই সেটা মানতে রাজি নয়। গত নভেম্বরেই চুক্তি নবায়ন করা হয়েছে রোনালদোর। ২০২১ সাল পর্যন্ত রিয়ালের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ পর্তুগিজ তারকা। এক বছর না যেতেই চুক্তি নবায়ন করতে চাইবে না কোনো ক্লাব। রোনালদো এখন ২০ মিলিয়নের মতো বেতন পান বলে জানা গেছে।
রোনালদো নিজেও অবশ্য এ নিয়ে খুব বেশি তোড়জোড় দেখাচ্ছেন তা নয়। বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের বিপক্ষে জোড়া গোলের পর নতুন চুক্তি নিয়ে প্রশ্ন উঠতেই নিরাপদ পথে হেঁটেছেন, ‘এটা খুব ভালো প্রশ্ন। তবে সভাপতি (ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ) এ বিষয়ে ভালো উত্তর দিতে পারবেন।’
তবে, আগামী মাসেই ফিফা বর্ষসেরা পুরস্কার অনুষ্ঠিত হবে। এবারও যদি সেটা রোনালদোর কাছে যায়, তবে বেতনের প্রসঙ্গ আবারও ফিরে আসবে, এটা নিশ্চিত। এর আগে একবার রিয়ালে তাঁর বেতন এবং স্পেনের মাত্রাতিরিক্ত আয়কর নিয়ে প্রশ্ন তুলে রোনালদো নিজেকে অসুখী দাবি করেছিলেন। এবার অবশ্য এখনো তা বলেননি। তবে রোনালদো অসুখী বোধ করার আগেই রিয়ালকে উদ্যোগ নিতে হবে। সূত্র: মার্কা।

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

eleven + sixteen =