নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে জাকির হোসেন (৩৬) নামে এক যুবলীগ কর্মীকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। আজ বুধবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে উপজেলার ভুলতা ইউনিয়নের গাউছিয়া এলাকার তাঁতবাজারে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থলের ৫০ গজের মধ্যে ভুলতা পুলিশ ফাড়িঁ অবস্থিত। নিহত জাকির হোসেন ভুলতা ইউনিয়ন যুবলীগের সদস্য এবং উপজেলার মর্তুজাবাদ গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে।
নিহতের স্ত্রী উপজেলা যুব মহিলালীগ নেত্রী ফারজানা আক্তার জানান, ভুলতা তাঁতবাজারের সামনের ফুটপাটে প্রতিদিন হাট বসান তার স্বামী। এ হাটের খাজনার টাকা নিয়ে স্থানীয় মেম্বার আমীর হোসেন, শাহআলম মোল্লা, ট্যারা শাহিনসহ কয়েকজনের সঙ্গে তার স্বামীর বিরোধ চলছিল। বুধবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে জাকির হোসেন মার্কেটে গিয়ে রেদোয়ান টাওয়ারের নীচে একটি দোকানে নাস্তা করছিলেন।

এ সময় ১০/১২জন মুখোশধারী জাকির হোসেনকে সেখান থেকে ধরে এনে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের উপড়ে তুলে প্রকাশ্যে কুপিয়ে আহত করে। পরে আশেপাশের লোকজন গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে সকাল ১০টার দিকে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকগণ জাকির হোসেনকে মৃত ঘোষণা করেন। কে বা কারা তার স্বামীকে হত্যা করেছে এ ব্যাপারে নিশ্চিত নয় উল্লেখ্য করে ফারজানা আক্তার আরো বলেন, তার অভিভাবক স্থানীয় সংসদ সদস্য গোলাম দস্তগীর গাজীর পরামর্শ অনুসারে মামলা করা হবে।
এ ব্যাপারে ভুলতা পুলিশ ফাঁড়ির ইনর্চাজ ইন্সপেক্টর শহিদুল ইসলাম বলেন, জাকির হোসেনকে তার ফাঁড়ির উল্টোপাশের একটি বিরিয়ানীর দোকান থেকে তুলে নিয়ে দুর্বৃত্তরা কুপিয়ে হত্যা করেছে। ফাঁড়ির সামনে ফ্লাইওভারের কাজ চলার কারনে রাস্তার উল্টোপাশে দেখা যায় না। তবে এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হোটেলের এক কর্মচারীকে আটক করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, পুলিশ এক ব্যক্তিকে সন্দেহের তালিকায় রেখেছে। তাকে আটক করা হলে হত্যার আসল রহস্য উদঘাটন হবে বলে আশাবাদী তিনি।

Comments

comments

আরও পড়ুনঃ   তাবিথই বিএনপির প্রার্থী

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

five × four =