প্রশ্ন ফাঁস চক্রের সাথে জড়িত প্রকৃত অপরাধীকে চিহ্নিত বা ধরিয়ে দিতে পারলে পাঁচ লাখ টাকা পুরস্কার ঘোষণা করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।
আজ রোববার মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে আয়োজিত সভা শেষে এক সংবাদ সম্মেলনেপ্রশ্ন ফাঁস চক্রের সাথে জড়িত অপরাধীকে ধরিয়ে দিতে পারলে পুরস্কার ৫ লাখ টাকা নুরুল ইসলাম নাহিদ এ কথা বলেন। চলমান এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা সুষ্ঠু, নকলমুক্ত ও ইতিবাচকভাবে অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে গঠিত জাতীয় মনিটরিং এবং আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সাথে এই জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়।
নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, ‘এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে পূর্বের সিদ্ধান্তসমূহ কার্যকর থাকবে। এ ছাড়া প্রশ্ন ফাঁস চক্রের সাথে জড়িত প্রকৃত অপরাধীকে চিহ্নিত বা ধরিয়ে দিতে পারলে পাঁচ লাখ টাকা পুরস্কার দেয়া হবে।’
এর আগে নুরুল ইসলাম নাহিদের সভাপতিত্বে সভায় কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন, কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আলমগীরসহ শিক্ষা মন্ত্রণালয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, কেবিনেট ডিভিশন, বিটিআরসি এবং পুলিশ ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর উর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ট সংস্থার কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আলমগীর-এর নেতৃত্বে পরীক্ষা মনিটরিং ও প্রশ্ন ফাস এবং পরীক্ষা যথাযথ হয়েছে কি-না এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও সংশ্লিষ্ট সংস্থার প্রতিনিধেদের সমন্বয়ে ১১-সদস্যবিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ কমিটি সার্বিক বিষয় পর্যালোচনা করে সুপারিশ পেশ করবে।’
শিক্ষামন্ত্রী বলেন, যারা প্রশ্ন ফাঁস বা ফাঁসের গুজব ছড়াচ্ছে, কার্যক্রম দেখে এ কথা প্রতীয়মান হয়, তাদের লক্ষ্য সরকার ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে হেয় প্রতিপন্ন করা। এ জন্যই পরিকল্পিতভাবে এ কাজ করা হচ্ছে। এর সাথে জড়িত প্রত্যেকে ধরা পড়বে। তাদেরকে কঠোর শাস্তি ভোগ করতে হবে।

আরও পড়ুনঃ   জ্ঞান ও প্রযুক্তি রপ্তানি করা হবে: শিক্ষামন্ত্রী

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

one + 17 =