ইসরাইলের কোনো নাগরিক ১৮ বছরে পা দিলে নির্দিষ্ট সময়ের জন্য তাকে স্বেচ্ছায় দেশটির সেনাবাহিনীতে যোগদান করতে হয়। পুরুষদের দুই বছর আট মাস এবং নারীদের জন্য এ সময় দুই বছর পর্যন্ত। তবে সম্প্রতি ইসরাইলি সেনাবাহিনীতে যোগ দিতে অস্বীকৃত জানিয়েছেন দেশটির ৬৩ কিশোর। প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর প্রতি খোলাচিঠি লিখে তারা সামরিক বাহিনীতে যোগদানে ইচ্ছুক নন বলে জানান। খবর দ্যা নিউ আরব । এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও সামরিক বাহিনীর প্রধান গাজি এইসেনকোট, প্রতিরক্ষামন্ত্রী আভিগদোর লাইবারম্যান এবং শিক্ষামন্ত্রী নাফতালি ব্যানেতকে উদ্দেশ্য করে ১৮ বছর বয়সী এসব কিশোর সেনাবাহিনীতে যোগদানে অনিচ্ছা প্রকাশ করে বলেন, আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে ফিলিস্তিনি জনগণের বিরুদ্ধে অভিযান ও দখলদারিত্বে আমরা অংশগ্রহণ করবো না। তারা আরও বলেন, ‘গত ৫০ বছর ধরে এ ‘অস্থায়ী’ পরিস্থিতি চলে আসছে, আমরা এর সাথে জড়াতে চাই না।’ চিঠিতে সেনাবাহিনীর সমালোচনা করে তারা লিখেন, সেনাবাহিনী সরকারের উগ্রবাদী পলিসি অনুসরণ করছে। যারা মৌলিক মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে এবং একই অঞ্চলে ইসরাইলি ও ফিলিস্তিনিদের জন্য আলাদা আইন প্রয়োগ করছে। এদিকে সেনাবাহিনীতে যোগদানে অস্বীকৃতি জানানো খোলাচিঠিতে স্বাক্ষর করায় ২০ বছর বয়সী এক কিশোরকে গ্রেফতার করেছে ইসরাইলি পুলিশ।

Comments

comments

আরও পড়ুনঃ   ইরানে ভূমিকম্পে নিহতের সংখ্যা চারশ ছাড়িয়েছে

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

two × two =