প্রশ্নফাঁসের ধারাবাহিকতায় চলমান এসএসসি পরীক্ষার বাংলা প্রথমপত্র প্রশ্নফাঁস হওয়ার পর এ নিয়ে ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়ে তোপের মুখে পড়েছেন গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র এবং শিক্ষামন্ত্রীর জামাতা ডা. ইমরান এইচ সরকার। ফেসবুকে তার শ্বশুর শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদসহ তাকেও তুলোধুনো করেছেন অনেকে। তোপের মুখে তিনি জানিয়েছেন, (প্রশ্নফাঁস) নিয়ে তার পরামর্শ শোনার সময় তার শ্বশুরের (শিক্ষামন্ত্রী) নেই। এ নিয়ে (আলোচনা করার) অনেক চেষ্টা করে তার মনে হয়েছে সময় অপচয় হওয়া ছাড়া আর কিছুই নয়। নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে দেয়া ওই পোস্টে একজনের মন্তব্যের জবাবে নিজের অসহায়ত্ব প্রকাশ করে তিনি লিখেছেন: আমার পরামর্শ শোনার উনার সময় কোথায়? উনিতো ব্যস্ত…’ গত ১ ফেব্রুয়ারি শুরু হওয়া এসএসসি পরীক্ষার বাংলা প্রথমপত্রের প্রশ্নফাঁস হয় বলে প্রমাণসহ সংবাদ প্রকাশ করে কয়েকটি গণমাধ্যম। এরপর ২ ফেব্রুয়ারি ইমরান এইচ সরকার তার নিজের ফেসবুক পেইজে দেয়া এক পোস্টে লেখেন, ‘প্রশ্নফাঁসের মূলহোতা কে? সেটা খুঁজে বের করা সরকারেরই দায়িত্ব। কিন্তু আমরা আর চাই না আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের স্বপ্ন নষ্ট হয়ে যাক। আমাদের বাঁচান, আগামীর প্রজন্মকে বাঁচান।’ শনিবার বিকেল পর্যন্ত ওই পোস্টে প্রায় এক হাজার ফেসবুক ব্যবহারকারী কমেন্টে শ্বশুর-জামাতাকে আক্রমণ করে তাদের মতামত তুলে ধরেন। তবে এই এক হাজার মন্তব্যে মাত্র তিনটির জবাব দিতে দেখা যায় ইমরান এইচ সরকারকে। এমডি রাজু নামের একজন মন্তব্য করেন, এই দায়িত্ব নিয়ে আপনার শ্বশুর বসে আছে, আপনি উনারে কিছু পরামর্শ দিন। উত্তরে ইমরান লেখেন, আমার পরামর্শ শোনার উনার সময় কোথায়? উনি তো ব্যস্ত… নোমান মোড়ল নামের একজন মন্তব্য করেন, এ ব্যাপারে (ফেসবুকে) স্ট্যাটাস না দিয়ে আপনার শ্বশুরের (শিক্ষামন্ত্রী) সঙ্গে আলোচনা করুন। জাতি উপকৃত হবে। জবাবে ইমরান বলেন, অনেক চেষ্টা করেছি। সময়ের অপচয় ছাড়া কিছু না… মনজুর স্বপন নামের আরেকজন মন্তব্য করেন, আপনার শ্বশুর আর শাশুড়ি এ ব্যাপারে ভালো বলতে পারবেন। আমাদের ভাবি সাহেবানও (শিক্ষামন্ত্রীর মেয়ে এবং ইমরান এইচ সরাকারের স্ত্রী) জেনে থাকতে পারে মূল হোতা কে বা কারা!! উত্তরে নিজের অসহায়ত্ব প্রকাশ করে ডা. ইমরান এইচ সরকার লেখেন, সেটা তাদের বলাই ভালো। আমি ভাই নিরীহ মানুষ! আসাদুজ্জামান নূর নামে নামে এক ব্যক্তি ইমরান এইচ সরকারকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে মন্তব্য করেছেন, আগামী শুক্রবার শাহবাগে গিয়ে শিক্ষামন্ত্রীরর পদত্যাগ এর জন্য মঞ্চ গড়ে তুলুন। তাহলে বুঝবো আপনি সত্যিই দেশপ্রেমিক। জানি পারবেন না। তাহলে এখানে হুদাই লিখে হিরো সাজতে যাইয়েন না। এমন মন্তব্যের অবশ্য কোন উত্তর দেননি ইমরান এইচ সরকার। সারওয়ার জাহান নামের একজন মন্তব্য করেছেন, আপনি অনেক কিছু নিয়ে প্রতিনিয়ত লিখলেও প্রশ্নফাঁস নিয়ে লেখেন না। যাক আজ লেখার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। প্রশ্নফাঁস নিয়ে যত নাটক হচ্ছে সব নাটকের নায়ক কিন্তু আপনার শ্বশুর মশাই। আমরা যত লেখালেখিই করি তিনি বুঝেনও না শুনেনও না। তিনি চোখ থাকিতেও অন্ধ। আপনি তাকে একান্ত বুঝান যে, তার এখন উপযুক্ত সময় এ দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়ার। তিনি শিক্ষা ক্ষেত্রে ব্যাপক উন্নতি করায় যে পুরস্কার পেয়েছেন তা নিয়ে তাকে শান্তিতে ঘুমাতে বলেন এবং দেশকে মুক্তি দেন। এভাবেই এক হাজার মন্তব্যের বেশিরভাগেই শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ ও তার মেয়ে জামাতা ডা. ইমরান এইচ সরকারসহ ওই পরিবারেরকে তুলোধুনো করে ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ   প্রধানমন্ত্রী রোববার কম্বোডিয়া সফরে যাবেন

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

14 − fourteen =