লাতিন আমেরিকার সবচেয়ে বেশি উপার্জনকারী সেলিব্রিটির তালিকায় শীর্ষস্থান দখল করেছেন বার্সেলোনার আর্জেন্টাইন সুপারস্টার লিওনেল মেসি। গত ১ জুন পর্যন্ত বছর ধরে ৮০ মিলিয়ন ডলার আয় করেছেন মেসি । যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত বিজনেস ম্যাগাজিন ‘ফোর্বস’ এই তালিকা প্রকাশ করেছে। সব মিলিয়ে বিশ্বের ১০০ শীর্ষ উপার্জনকারীর তালিকায় ১৪তম স্থানে রয়েছেন মেসি। ৯৩ মিলিয়ন ডলার নিয়ে পাঁচ নম্বরে ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। পাঁচজনের সঙ্গে যৌথভাবে ৭১তম স্থানে নেইমার। ট্যাক্স ও ম্যানেজমেন্ট খরচ বাদ রেখে ১২ মাসে টপ টেন লাতিনো সেলিব্রিটিদের আয় ধরা হয়েছে ৪০৪.৩ মিলিয়ন ডলার। স্থানীয় ও যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসকারী লাতিন আমেরিকান বংশোদ্ভূত বিনোদনকারীদের বিবেচনায় রেখে তালিকা তৈরি করা হয়েছে। সর্বোপরি এন্টারটেইনমেন্ট ইন্ডাস্ট্রির সর্বোচ্চ উপার্জনকারীর নামগুলো উঠে এসেছে ফোর্বসের বিশ্লেষণে। মেসির ধারেকাছেও কেউ নেই। ব্রাজিলিয়ান ফুটবল সেনসেশন নেইমারের উপার্জন দেখানো হয়েছে ৩৭ মিলিয়ন ইউরো। দ্বিতীয় স্থানে থাকা লাতিন কমেডিয়ান লুইস সিকের বার্ষিক আয় ৫২ মিলিয়ন ইউরো। সেরা তিনে জায়গা করে নিয়েছেন কলম্বিয়ান অভিনেত্রী সোফিয়া ভার্গারা। তার আয় ৪১.৫ মিলিয়ন ডলার। ফোর্বসের তথ্যমতে, সোফিয়ার বেশিরভাগ অর্থই এসেছে বিজ্ঞাপন থেকে। বিভিন্ন ব্র্যান্ডের হয়ে কাজ করেছেন তিনি। যুক্তরাষ্ট্রের টেলিভিশন অভিনেত্রীদের মধ্যে সর্বোচ্চ উপার্জনকারী সোফিয়া। শীর্ষ ১০ জন লাতিন সেলিব্রিটির মধ্যে নারী মাত্র দুজন। সোফিয়া ও জেনিফার লোপেজ, যিনি ৩৮ মিলিয়ন ডলার নিয়ে সপ্তম স্থানে আছেন। চতুর্থ অবস্থানে গায়ক ব্রুনো মার্স। তার নামের পাশে ৩৯ মিলিয়ন ডলার। টপ টেন লিস্টের অর্ধেকেরও বেশি ফিগার পেশাদার অ্যাথলেট। দু’জন ফুটবলার (মেসি ও নেইমার), তিনজন মেজর লীগ বেসবল তারকা ও একজন বাস্কেটবল খেলোয়াড়। ওয়েবসাইট।

Comments

comments

আরও পড়ুনঃ   বাংলাদেশের বিপক্ষে দ. আফ্রিকার ওয়ানডে দল ঘোষণা

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

four + 12 =