যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার পার্কল্যান্ডে একটি স্কুলে আক্রমণকারীর গুলিতে মারা গেছে অন্তত ১৭ জন।
সন্দেহভাজনের নাম নিকোলওস ক্রুজ। ১৯ বছর বয়সী এই তরুণ ঐ স্কুলের ছাত্র ছিল যাকে শৃঙ্খলাভঙ্গের দায়ে স্কুল থেকে বহিস্কার করা হয়েছিল।
কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, প্রথমে স্কুলের বাইরে গুলি চালানো শুরু করে এরপর স্কুলের ভেতরে যায় আক্রমণকারী।
স্কুলের ভেতরে থাকা প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান আক্রমণকারী গুলি চালানো শুরু করার আগে ‘ফায়ার অ্যালার্ম’ বাজিয়ে দেয়।
ব্রাওয়ার্ড কাউন্টির শেরিফ সাংবাদিকদের জানান, ক্রুজ স্কুলের বাইরে একটি রাইফেল দিয়ে গুলি করা শুরু করলে ৩ জন মারা যায়। এরপর স্কুলের ভেতরে ঢুকে ১২ জনকে হত্যা করে।
হাসপাতালে নেয়ার পর মারা যান আরো দুই জন। পরে আক্রমণকারী ক্রুজ সহ ১৭ জনকে হাসপাতালে নেয়া হয়। প্রাথমিক চিকিৎসার পর ক্রুজকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।
প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প টুইট করে হতাহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান।২০১২ তে কানেটিকাটের একটি স্কুলে গুলিতে ২৬জন মারা যাওয়ার পর এটি কোনো স্কুল প্রাঙ্গনে সবচেয়ে ভয়াবহ হত্যাযজ্ঞের ঘটনা।
‘এভরিটাউন ফর গান সেফটি’ নামের একটি সংস্থার জরিপ অনুযায়ী, এই বছরে এনিয়ে ১৮বার যুক্তরাষ্ট্রে কোনো স্কুলের ভেতরে বা স্কুল প্রাঙ্গনে গোলাগুলির ঘটনা ঘটলো।
২০১৩ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে স্কুলে গুলি চালানোর ঘটনা ঘটেছে ২৯১টি। গড়ে প্রায় প্রতি সপ্তাহে একটি করে।

সূত্রঃ বিবিসি

Comments

comments

আরও পড়ুনঃ   আমেরিকা ছাড়াই পরমাণু সমঝোতা অব্যাহত থাকবে: অস্ট্রিয়া

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

twenty − 3 =