ওবায়দুল হক চৌধুরী: 

মাছ ধরার সময় বাংলাদেশি ৫ জেলেকে সাগরে পানিতে ফেলে দিয়ে মাছ ও ট্রলার নিয়ে গেছে মিয়ানমার বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপি)। পরে ওই জেলেদের নাফনদী থেকে জারিকেনে ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার করেছে বিজিবির টহলদলে সদস্যরা। শুক্রবার (৩ নভেম্বর) ভোররাত ৪টার দিকে সেন্ট মার্টিনের দক্ষিণে বঙ্গোপসাগর এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে। ট্রলারে থাকা জারিকেন দিয়ে সাতরিয়ে শাহপরীর দ্বীপ জালিয়া পাড়ার নাফ নদীর পাড় থেকে তাদের উদ্ধারে করে বিজিবি।

উদ্ধারকৃত জেলেরা হলো- মো. রুবেল (২৫), মো. ইলিয়াছ (২২), নাজিম উদ্দিন (২৬) সৈয়দ উল্লাহ (৩০), মো. আলমগীর (৩০)। এরা সকলেই টেকনাফ উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের বাহারছড়ার বাসিন্দা।

উদ্ধার হওয়া ট্রলারের মাঝি সৈয়দ উল্লাহ বলেন, বৃহস্পতিবার বিকেলে পাচজন জেলে নিয়ে মাছ ধরতে সেন্ট মাটিন দ্বীপের উত্তর র্পূব বাংলাদেশে জলসীমানায় জাল ফেলে মাছ ধরছিলাম। হঠাৎ ভোররাত ৪টার দিকে মিয়ানমারের একটি স্পীড বোট এসে অস্ত্র তাক করে আমাদের জিম্মি করে বিজিপির সদস্যরা। পরে ট্রলারে উঠে আমাদেরকে মারধর করে, একে একে সবাইকে সাগরে ফেলে দেয়। ওই সময় ট্রলারে থাকা মাছসহ ট্রলারটি বেধপ নিয়ে যায় বিজিপি। ট্রলারে থাকা জারিকেন ফেলে দিলে সেগুলো দিয়ে সাঁতা কেটে সময় নাফনদীর শাহপরীর দ্বীপ জালিয়া পাড়ার কাছাকাছি এলাকা থেকে আমাদেরকে উদ্ধার করে বিজিবি।

টেকনাফ ২ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল এসএম আরিফুল ইসলাম বলেন, নাফনদী থেকে পাচঁ জেলেকে উদ্ধার করা হয়েছে। রোহিঙ্গা পরিস্থিতি নিয়ে নাফনদীতে মাছ শিকার বন্ধ রাখা হয়েছে। কিন্তু তারা স্থানীয় প্রশাসনের নির্দেশ অমান্য করে মাছ শিকারে নেমেছে এরং মিয়ানমার জল সীমানা অতিক্রম করে তাই তাদের পুলিশে সোপদ করা হয়।

Comments

comments

আরও পড়ুনঃ   মানবতাবিরোধী অপরাধ, আজিজসহ ছয় জনের মৃত্যুদন্ডাদেশ

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

three × three =