রাজধানীর পাইকারি বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য চিনির দাম বেড়েছে। কারওয়ান বাজারের পাইকারি দোকানে পণ্যটির দাম কেজিতে আড়াই টাকার মতো বাড়তি। আর পুরান ঢাকার মৌলভীবাজারে চিনির দাম মণপ্রতি ৭০ টাকা বেড়েছে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

অবশ্য সব খুচরা বাজারে চিনির নতুন দরের প্রভাব এখনো পড়েনি। কারওয়ান বাজারের কিছু খুচরা দোকানে দর বেড়েছে। এসব দোকানের বিক্রেতারা জানিয়েছেন, তাঁরা নতুন করে চিনি বাড়তি দরে কিনেছেন বলেই বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে।

চিনি ছাড়া বাজারে অন্যান্য পণ্যের দাম স্থিতিশীল আছে। সবজির দাম ক্রেতাদের নাগালে রয়েছে। ডিম, ব্রয়লার মুরগি, ডাল ও আটার দামও চড়া নয়।

দেশে চিনির বাজার বেশ কয়েক মাস ধরেই স্থিতিশীল ছিল। খুচরা বাজারে প্রতি কেজি খোলা চিনির দাম এখন ৫২-৫৬ টাকা। আর প্যাকেটজাত চিনি বিক্রি হচ্ছে কেজিপ্রতি ৬০-৬২ টাকা দরে। গত ঈদুল ফিতরে প্রতি কেজি চিনি ৭৫ টাকায় উঠেছিল। এরপর থেকে দাম কমেছে।

কারওয়ান বাজারের কিচেন মার্কেটের পাইকারি দোকান সোনালি ট্রেডার্সের এক বিক্রেতা গতকাল বৃহস্পতিবার বলেন, কয়েক দিন আগেও ৫০ কেজির প্রতি বস্তা চিনি ২ হাজার ৪৫০ টাকা ছিল। এখন তা ২ হাজার ৫৭০ টাকা হয়েছে। মৌলভীবাজারের পাইকারি ব্যবসায়ী গোলাম মাওলা বলেন, কয়েক দিনে এক মণ চিনি ১ হাজার ৭৮০ টাকা থেকে বেড়ে ১ হাজার ৮৫০ টাকা হয়েছে। এতে কেজিতে বেড়েছে ১ টাকা ৮৮ পয়সা। তিনি বলেন, সরকারি সংস্থার আমদানি করা চিনির দাম বেশি পড়েছে, এ খবরে বাজারে তার প্রভাব পড়েছে। এ ছাড়া চিনি সরবরাহকারীরাও এখন একটু বাড়তি দাম চাচ্ছে।

শীতের বিভিন্ন ধরনের সবজি খুচরা বাজারে ২০ থেকে ৪০ টাকার মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে। গতকাল তেজগাঁওয়ের কলমিলতা বাজারের বিক্রেতা মো. জহিরের দোকানে প্রতি কেজি গোলবেগুন ৪০ টাকা, শিম ৩০ টাকা, শালগম ২০ টাকা, টমেটো ২০ টাকা, ফুলকপি ও বাঁধাকপি প্রতিটি ২০ টাকা এবং আলু প্রতি কেজি ২০ টাকা দরে বিক্রি হয়। ওই বিক্রেতা বলেন, শীতের সবজির দাম এখন অনেক কম। তবে মূল্য চড়া নতুন আসা গ্রীষ্মকালীন সবজির। এর মধ্যে উচ্ছে ১৮০ টাকা, চিচিঙ্গা ৮০ টাকা ও ঢ্যাঁড়স ৮০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।

আরও পড়ুনঃ   পাচার হওয়া অর্থের তথ্য সংগ্রহের জন্য এনবিআর একাউন্টিং ফার্ম নিয়োগ দেবে

একই বাজারে দেশি পেঁয়াজ ৫৫ টাকা ও ভারতীয় পেঁয়াজ ৫০ টাকা দরে বিক্রি করছেন বিক্রেতারা। তবে বছরের এই সময় পেঁয়াজের দাম সাধারণত কেজিপ্রতি ২০ থেকে ৩০ টাকা থাকে। কারওয়ান বাজারে প্রতি হালি ফার্মের মুরগির ডিম ২৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। ব্রয়লার মুরগির কেজিপ্রতি দর ১৩০ টাকা।
তেজগাঁওয়ের কলমিলতা বাজারে কেনাকাটার সময় স্থানীয় বাসিন্দা কামরুল আহসান প্রথম আলোকে বলেন, এখন চালের দাম কমলেই বাজারে স্বস্তি ফিরত। সরু চাল কিনতে হয় ৬৫ টাকা কেজিতে। এখানেই খরচ অনেক বেড়ে যায়।

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

fourteen + 1 =