বার্সেলোনার বিপক্ষে আজ মাঠে নামছে জুভেন্টাস। এ ম্যাচ নিয়ে বার্সার তেমন কোনো শঙ্কিত বিষয় না থাকলেও জুভেন্টাস রয়েছে বিপদে। বার্সার বিপক্ষে একটি জয় তাদের নিয়ে যাবে শেষ ১৬-তে। আর হেরে গেলেই শেষ হয়ে যেতে পারে তাদের ইউয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগের মিশন। সেক্ষেত্রে তাদের নির্ভর করতে হবে স্পোর্টিং সিপি ও অলিম্পিয়াকোসের ম্যাচের ওপর। এ ম্যাচে যদি অলিম্পিয়াকোস হেরে যায় তবে বাদ পড়ে যাবে জুভেন্টাস।

সুতরাং বাঁচা-মরার ম্যাচে বার্সার বিপক্ষে নামছে তারা এটা বলাই যায়। এদিকে, জুভেন্টাসের বিপক্ষে হার এড়াতে পারলেই ‘ডি’ গ্রুপের শীর্ষদল হয়ে শেষ ১৬-তে উঠবে বার্সা। ক্যাম্প ন্যুতে গত সেপ্টেম্বরে এ দুদলের মুখোমুখিতে ইতালিয়ান ক্লাব জুভেন্টাসকে ৩-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছিল স্প্যানিশ ক্লাব বার্সা। এদিকে, বার্সা ডিফেন্ডার জেরার্ড পিকে এ ম্যাচে মাঠে থাকবেন। নিষেধাজ্ঞা থাকায় অলিম্পিয়াকোসের বিপক্ষের ম্যাচে ছিলেন না তিনি।  তবে এ ম্যাচে বার্সাকে যথেষ্ট চাপেই রাখবে জুভেন্টাস। গঞ্জালো হিগুয়েন, পাওলো দিবালারা সহজে ছেড়ে দেবে না বার্সাকে। গত রোববার সাম্পদোরিয়ার কাছে ৩-২ তে হেরে যাওয়া ম্যাচে গোলের দেখা পেয়েছিলেন দিবালা। সাম্পদোরিয়ার বিপক্ষে হেরে যাওয়া ম্যাচের শিক্ষা বার্সার বিপক্ষে কাজে লাগাতে পারলে ফলাফল তাদের পক্ষে আসতেও পারে। এদিকে লুইস সুয়ারেজের জোড়া গোলে সর্বশেষ ম্যাচে লেগানেসের বিপক্ষে  ৩-০ তে জয় পেয়েছিল বার্সা। অবশ্য জুভেন্টাসের কোচ ম্যাসিমিলিয়ানো অ্যালেগ্রি ২০১৪ সালে দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে যথেষ্ট সাফল্যের মুখ দেখেছেন। সর্বশেষ তিন মৌসুমে দলকে দু-দুবার ফাইনালে নিয়েছেন। যদি আজ জুভেন্টাস হেরে যায় বার্সার কাছে আর অলিম্পিয়াকোস স্পোর্টিংয়ের কাছে হার দেখে তবে এ দুদল ফাইনাল রাউন্ডে পরস্পরের মুখোমুখি হবে।

Comments

comments

আরও পড়ুনঃ   ‘আমি সিরিজে খারাপ খেলেছি তাই বলে বিয়ে করব না?’

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

18 − 7 =