আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সরকার পতনের আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি আদালতের বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু করেছে।
তিনি বলেন, ‘দেশে অনেক মামলার রায় হয়েছে। কিন্তু বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার দুর্নীতি মামলার রায় নিয়ে রাজনীতিতে যে উত্তাপ তৈরি হয়েছে তা অতীতে আর কখনো ঘটেনি। রায়ের বিরুদ্ধে আন্দোলন করার ঘোষণাও কেউ কখনো দেয়নি।’
কাদের আরো বলেন, আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করা দেশের ইতিহাসে নজিরবিহীন ঘটনা। এ ধরনের ঘটনা দেশে কখনও ঘটেনি।
ওবায়দুল কাদের বুধবার সন্ধ্যায় রাজধানীর ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপতি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন।
বিএনপির গুলশান কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে দেয়া বেগম খালেদা জিয়ার বক্তব্যের জবাবে আওয়ামী লীগের এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।
এ সময় আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপুমনি, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, একেএম এনামুল হক শামীম, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, দপ্তর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, উপ-দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়–য়া, কার্য নির্বাহী সংসদের সদস্য এস এম কামাল হোসেন, ইকবাল হোসেন অপু, মো. আনোয়ার হোসেন ও মারুফা আক্তার পপি উপস্থিত ছিলেন।
ওবায়দুল কাদের বলেন, মামলার রায় আদালতের বিষয়। আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে আন্দোলন করার ঘোষণা দিয়ে বিএনপি আদালতের বিষয়কে রাজনৈতিক মাঠে নিয়ে এসেছে। তাদের এ ধরনের বক্তব্য কি আদালত অবমাননার শামিল নয়?
তিনি বলেন, জাতি হিসেবে আমাদের দূর্ভাগ্য হলো বিএনপি আইন আদালতকেও রাজনীতির নোংরা খেলায় নিয়ে এসেছে। দেশে যা কখনো হয়নি বিএনপি সেই খারাপ দৃষ্টান্ত ভবিষ্যত প্রজম্মের জন্য রেখে যাচ্ছে।
কাদের বলেন, খালেদা জিয়ার দুর্নীতি মামলায় কি রায় হবে বিএনপি তা কিভাবে জানল। আদালত তো তাকে খালাসও দিয়ে দিতে পারে। আর রায় তার বিরুদ্ধে গেলে তিনি উচ্চ আদালতে যেতে পারেন, রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ করতে পারেন, রাষ্ট্রপতিও তাকে ক্ষমা করে দিতে পারেন।
তিনি বলেন, খালেদা জিয়া তার দুর্নীতির মামলাকে আইনীভাবে মোকাবেলা না করে আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে আন্দোলন করার ঘোষণা দিলেন। কিন্তু সন্ত্রাস ও সহিংসতার মাধ্যমে খালেদা জিয়া নিজের দুর্নীতির অপরাধ ঠেকিয়ে রাখতে পারবেন না।
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপির নেতারা আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে নানা ধরনের বক্তব্য দিয়েছে এরং প্রকাশ্য দিবালোকে প্রিজন ভ্যানে হামলা চালিয়ে আসামী ছিনতাই ও পুলিশের ওপর হামলা করেছে। আর বিভিন্ন জেলা থেকে পুলিশের কাছে তথ্য রয়েছে খালেদা জিয়ার দুর্নীতি মামলার রায়কে কেন্দ্র করে বিএনপি দেশে সন্ত্রাস ও নাশকতা করতে পারে।
তিনি বলেন, আর এসব তথ্যের ভিত্তিতে জনগনের জানমাল রক্ষায় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সতর্ক হতে হয়েছে এবং তাদের কঠোর অবস্থানে থাকতে বলা হয়েছে।
বিএনপির সন্ত্রাস ও নাশকতার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তোলার জন্য দেশের সকল মানুষের প্রতি আহবান জানান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।
সংবাদ সম্মেলনে খালেদা জিয়া মায়াকান্না করেছেন উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, সেনাবাহিনী, পুলিশ ও প্রশাসনে নিজেদের লোক রয়েছে বলে ঘোষনা করে তিনি জঘন্য অপরাধ করেছেন। আর যদি তার লোক থেকেই থাকে তাহলে মামলা নিয়ে এত ভয় কেন?

আরও পড়ুনঃ   বিএনপির শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে পুলিশ বাধা দেয় না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

7 − 1 =