ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বারস এন্ড কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি (এফবিসিসিআই) দেশের ব্যবসা-বাণিজ্যকে আরও গতিশীল ও ফলপ্রসূ করতে চট্টগ্রাম বন্দরসহ অন্যান্য সমুদ্রবন্দরের সক্ষমতা বাড়ানো অত্যন্ত জরুরি বলে অভিমত ব্যক্ত করেছে।
আজ শনিবার ফেডারেশন ভবনে এফবিসিসিআই’র নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্ট্যান্ডিং কমিটির (মেরিটাইম পোর্ট) এক সভায় বক্তারা এ অভিমত ব্যক্ত করেন।
সভায় বলা হয়,দেশের দ্রুত অগ্রসরমান উন্নয়ন প্রক্রিয়ার সাথে তাল মিলিয়ে বন্দরের পণ্য লোড-আনলোড দ্রুতকরণ, গ্যান্ট্রি-ক্রেন ও প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতির সংখ্যা বাড়ানোসহ অন্যান্য সুবিধা নিশ্চিত করা দরকার।
এছাড়াও দেশে বিনিয়োগ বাড়াতে এবং বিনিয়োগকারীদের সহায়তায় জন্য সম্প্রতি জাতীয় সংসদে পাশকৃত ‘ওয়ানস্টপ সার্ভিস’র গুরুত্ব তুলে ধরে এ সভায় নৌ-পরিবহন এবং সমূদ্র পরিবহন সেবায় নিয়োজিত বিভিন্ন পক্ষকে ‘ওয়ানস্টপ সার্ভিসে’ সম্পৃক্ত করার ওপরও গুরুত্ব দেওয়া হয়।
সভায় বক্তারা উল্লেখ করেন, সমুদ্র বন্দরসমূহের অদক্ষতা এবং বন্দর ব্যবহারকারীদের সুষ্ঠু সেবা প্রদান না করতে পারায় অনেক ক্ষেত্রেই আমদানি রপ্তানিকারকদের ব্যবসায়িক খরচ বেড়ে যায়, যার প্রভাব পড়ে জাতীয় অর্থনীতির উপর।
বহু প্রতিক্ষিত পদ্মাসেতু চালু হলে মোংলা ও পায়রা বন্দরের গুরুত্ব অনেক বেড়ে যাবে উল্লেখ করে তারা বলেন, ব্যবসা-বাণিজ্যসহ দেশের সার্বিক অর্থনৈতিক উন্নয়নে সকল বন্দরের সক্ষমতা বৃদ্ধি এবং সেবার মান উন্নয়নে এ কমিটিকে কাজ করতে হবে। এ কমিটির মাধ্যমে শিল্প-বাণিজ্য সহায়ক কার্যক্রম পরিচালনার লক্ষ্যে বক্তাগণ কয়েকটি সাব কমিটি গঠনেরও সুপারিশ করেন।
কমিটির চেয়ারম্যান ড. মো. পারভেজ সাজ্জাদ আকতার সভায় সভাপতিত্ব করেন।
স্ট্যান্ডিং কমিটির ডাইরেক্টর ইন-চার্জ ও এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সহ-সভাপতি মাহবুবুল আলম, এফবিসিসিআই’র পরচিালক হাফেজ হারুণ সভায় বক্তৃতা করেন।

Comments

comments

আরও পড়ুনঃ   রিট করেছে বিএনপি, দোষ পড়েছে আওয়ামী লীগের : ওবায়দুল কাদের

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

eighteen − 12 =