মানিকগঞ্জ  সদস্য কন্ঠশিল্পী মমতাজ বেগমের ভাই এবারত হোসেনের বাড়ি থেকে বৃহস্পতিবার ঝুমা আক্তার (১৩) নামে এক স্কুল শিক্ষার্থীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘটনাটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা তা নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি করেছে। ঝুমা আক্তার সিংগাইরের জয়মন্টপে এবারত হোসেনের বাড়িতে থেকে পড়াশুনার পাশাপাশি গান শিখতো।
পুলিশ ও সংস্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে সিংগাইর উপজেলার ধল্লা গ্রামের রিয়াজুল হকের মেয়ে ঝুমা আক্তার। তার মা কাঞ্চন মালা বিদেশে থাকেন। বাবা দ্বিতীয় বিয়ে করায় ঝুমা আক্তার প্রায় তিন বছর ধরে জয়মন্টপের সংসদ সদস্য মমতাজ বেগমের ভাই এবারত হোসেনের বাসায় আশ্রিত হিসাবে থাকেন।
এবারত হোসেনও গান বাজনা করেন। ঝুমা এই বাড়ির ছোট খাট ফাইফরমাসের পাশাপাশি স্কুলেও লেখাপড়া করে। গত পিএসসি পরীক্ষায় সে অংশ নিয়েছে। এবারতের মেয়ে এনাতাজ ঝুমার সহপাঠী ছিল। ছেলে ফিরোজ সিংগাইর কলেজের একাদশ শ্রেনীর ছাত্র।
এবারত হোসেন জানান বৃহস্পতিবার ঘুম থেকে উঠে ঝুমাই রান্নাবান্না করে। এবারত তার স্ত্রী ফরিদা বেগম ,ছেলে ফিরোজ ও মেয়ে এনাতাজসহ ঝুমা একসাথে খাওয়া দাওয়া করেন। এর পর এবারত তার ছেলে ফিরোজকে নিয়ে তাদের আরেকটি বাড়িতে যান। খাওয়া দাওয়ার পর তার স্ত্রী ও মেয়ে বাড়ির আঙ্গিনায় রোদ পোহাচ্ছিলেন। সকাল দশটার দিকে ফিরোজ বাড়িতে ফিরে এসে নিজের ঘরে ঢুকে ঝুমাকে সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলতে দেখেন। এবারত বলেন ঘটনাটি আত্বহত্যা। তবে আত্বহত্যার কারন সম্পর্কে তিনি কিছু বলতে পারেনি।
ঘটনাস্থলে পৌছে লাশ উদ্ধার করেন সিংগাইর থানার এসআই জিয়াউদ্দিন উজ্জ¦ল। তিনি জানান ঝুমার মৃতদেহ ঝুলন্ত অবস্থায় পান। তারাই ঝুলন্ত অবস্থা থেকে নামান। ফ্যান থেকে একটি শাড়ি কাপড় ঝুমার গলায় জড়ানো ছিল। তিনি আরও বলেন ময়নাতদন্তের পরই মৃত্যুর কারন নিশ্চিত হওয়া যাবে।
ঝুমার বাবার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তবে তার মামা আবু সাইদ এ ব্যাপারে কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি।

সুত্রঃ মানবজমিন

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

three × three =