বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত মিস আয়ারল্যান্ডখ্যাত প্রিয়তি। পুরো নাম মাকসুদা আক্তার প্রিয়তি। বিমানের প্রশিক্ষক পাইলট হিসেবেও তার একটা অতিরিক্ত পরিচয় রয়েছে।

দীর্ঘ বছর ধরে তিনি বাংলাদেশ ছেড়ে আয়ারল্যান্ডে বসবাস করছেন। নতুন করে আর পাঠকের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিতে হবে না তাকে।

সম্প্রতি ফেসবুক ইনবক্সে এক বাংলাদেশি তরুণের নোংরা ম্যাসেজ দেখে ক্ষুব্ধ হয়েছেন এই বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মডেল অভিনেত্রী। দেশের বেশ কিছু গণমাধ্যমে এ সংবাদ প্রকাশ হয়।

নিজের ফেসবুক ওয়ালে ওই তরুণের ছবি ও নোংরা ম্যাসেজের স্ক্রিনশট দিয়ে তিনি লিখেছেন, ‘ভাবি আর ভয় পাই। কত হিংস্র পশুদের মাঝে আমাদের দেশের মেয়েরা প্রতিনিয়ত বসবাস করে। যারা এ রকম টেক্সট করতে পারে তারাই ধর্ষণ করার মনোভাব লালন করে। বেশি দূরে খুঁজতে হবে না তাদের।’

‘মিস আয়ারল্যান্ড’ খ্যাত প্রিয়তি আরো লিখেছেন, ‘অন্তত এ ক্ষেত্রে আয়ারল্যান্ড এ থাকতে পেরে ভাগ্যবতী মনে হয়। আজ পর্যন্ত কোনো আইরিশ বা পাশ্চাত্যের কোনো পুরুষের থেকে এ ধরনের কোনো টেক্সট পেতে হয়নি।’

জুবায়ের রহমান নামের ওই তরুণের ফেসবুক আইডিতে গিয়ে দেখা যায়, তার ‘বায়ো’তে লেখা, ‘আল্লাহ ইজ অল, ইসলাম ইজ মাই লাইফ।’

ওই তরুণ প্রিয়তির ইনবক্সে ‘প্রস্টিটিউট’ সমন্ধ করে নোংরা ভাষায় ম্যাসেজ লিখেছে। ওই ম্যাসেজে কুপ্রস্তাবও দেয়া হয়েছে।

প্রস্টিটিউট

তরুণের এসব স্ক্রিনশট দিয়ে প্রিয়তি বিস্ময় প্রকাশ করে লিখেছেন, ‘আল্লাহ্‌ এবং ইসলাম এদের মতো মানুষদের মনে প্রাণে!’

তিনি আরো লিখেছেন, ‘অনেকেই বলবেন ইগনোর করেন। হাজার হাজার ইগনোরেন্সের মধ্যে দুই একটা নমুনা দেখাতেই হয়।’

পরে কমেন্টেবক্সে প্রিয়তি আরো লিখেছেন, ‘জানি ওদের শিক্ষার, জানার, বোঝার অভাব আছে। মানসিকভাবে অসুস্থ। কিন্তু যখন আল্লাহ্‌ খোদার নাম নিয়ে এই গুলো করতে থাকেন, তখন আর পারা যায় না। ইগনোর করতে থাকলে, ওরা মজা পাবে আর সাইবার বুলিং বেড়ে যাবে।

এদের মুখোশ উন্মোচন করা উচিত উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে কোনো ফেসবুক পেইজ বা গ্রুপ থাকা উচিত, যারা এমন করবে, তাদের ছবি ও ফেসবুক আইডিসহ ওই গ্রুপ এ পোস্ট করা হবে। ফেইক আইডি হলেও ব্লক বা এ্যাকশন নেয়া হবে। এমন কিছু উদ্যেগ নেয়া উচিত এই জেনারেশনের যাতে সাইবার বুলিংয়ের শিকার না হতে হয়।’

যারা এই ধরনের টেক্সট বা কমেন্ট করে তারা একেকজন উন্মুক্ত ধর্ষক বলেও মন্তব্য করেন প্রিয়তি।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত প্রিয়তি প্রায় ১৪ বছর ধরে আয়ারল্যান্ডে বসবাস করছেন। প্রিয়তির দুটি সন্তান। গেল বছর ‘মিজ আয়ারল্যান্ড’ খেতাব পান তিনি। এরপর গত অক্টোবরে অংশ নেন ‘মিজ আর্থ’ প্রতিযোগিতায়। দ্বীপরাষ্ট্র জ্যামাইকাতে অনুষ্ঠিত এ প্রতিযোগিতায় তিনি ১ম রানার্সআপ হন।

মডেলিং ও অভিনয় জীবনে প্রিয়তি অর্জন করেছেন অনেক স্বীকৃতি ও পুরস্কার। তার মধ্যে আয়ারল্যান্ডের ডাবলিনে ইন্টারন্যাশনাল রানওয়ে কুইন্স রিকগনেশন অ্যাওয়ার্ডসে পুরস্কৃত হন তিনি। এছাড়া তিনি যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে মিস ইউনিভার্সাল রয়্যালটি ২০১৩, আয়ারল্যান্ডে মিজ আয়ারল্যান্ড ২০১৪, মিস হট চকোলেট ২০১৪, মিস ফটোজেনিক ২০১৪, সুপার মডেল অব দ্য ইয়ার ২০১৪, মিস আয়ারল্যান্ড আর্থ ২০১৫ এবং আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় মিস আর্থ হিসেবে প্রথম রানার-আপ ২০১৬, মিস কমপ্যাশনেট ২০১৬, মিস বেস্ট গাউন ২০১৬, মিস ফিটনেস ২০১৬ হয়েছেন।

আমিনুল ইসলাম রোমান

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

3 × 3 =