জাপানে গবেষকেরা জিন প্রকৌশলের মাধ্যমে বিশেষভাবে তৈরি মুরগির ডিম দিয়ে ক্যানসারের ওষুধ বানানোর চেষ্টা করছেন। নতুন এই ওষুধ তৈরি করা সম্ভব হলে তা চিকিৎসার খরচ নাটকীয় হারে কমিয়ে দেবে। আজ সোমবার জাপানের পত্রিকা ইওমিউরি শিম্বুনের এক প্রতিবেদনে এ খবর নিশ্চিত করা হয়েছে।

গবেষকেরা মুরগির ডিমে ‘ইন্টারফেরন বেটা’ নামের একটি আমিষজাতীয় পদার্থ (প্রোটিন) তৈরির চেষ্টা করছেন। সাধারণত এই প্রোটিন স্নায়ুতন্ত্রের রোগ ও হেপাটাইটিসের চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়। বর্তমানে ইন্টারফেরন বেটার কয়েক মাইক্রোগ্রামের দাম প্রায় ৮৮৮ ডলার। জিন প্রকৌশলের মাধ্যমে বিশেষভাবে তৈরি মুরগির ডিমে এই প্রোটিন উৎপাদন করা সম্ভব হলে এর দাম অনেকটা কমে যেতে পারে।

ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব অ্যাডভান্সড ইন্ডাস্ট্রিয়াল সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজির (এআইএসটি) গবেষকেরা এ প্রকল্পে কাজ করছেন। প্রাথমিকভাবে মুরগির কোষে বিশেষ জিন ঢোকানো হয়েছে। এতে করে ডিমেও প্রোটিনটি থাকবে। এভাবে উত্তরাধিকার সূত্রে এক মুরগি থেকে আরেক মুরগিতে ইন্টারফেরন বেটা তৈরির সক্ষমতা ছড়িয়ে পড়বে।

ইওমিউরি শিম্বুনের বরাত দিয়ে এএফপি জানিয়েছে, বর্তমানে ইন্টারফেরন বেটা–সমৃদ্ধ ডিম দিতে পারে, এমন তিনটি মুরগি জন্মানো গেছে। এগুলো প্রায় প্রতিদিনই ডিম পাড়ছে।

ডিমে তৈরি এই ওষুধ গবেষকেরা ওষুধ কোম্পানির কাছে বিক্রি করার পরিকল্পনা করছেন। তবে এর বাণিজ্যিক উৎপাদনের ক্ষেত্রে আরও বছর খানেক অপেক্ষা করতে হবে। কারণ, এই ওষুধ নিয়ে ব্যাপক পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালানো হবে। ভোক্তাদের জন্য এই ওষুধ ঝুঁকিহীন, তা প্রমাণিত হওয়ার পরই তা বাজারে ছাড়া হবে।

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

11 − nine =