একদিন আগে মার্সেইয়ের খেলোয়াড়দের লক্ষ্যবস্তু যেন ছিল নেইমার।

সবচেয়ে বেশি পাঁচবার ফাউলের শিকার হয়েছেন ব্রাজিলের এই ফরোয়ার্ড।

দ্বিতীয় হলুদকার্ড পাওয়ার সময়ও দুইবার ফাউলের শিকার হন বার্সেলোনার এই সাবেক তারকা।

বন্ধুর বহিষ্কার হওয়াটা মেনে নিতে পারছেন না মার্কো ভেরাত্তি। পিএসজির এই মিডফিল্ডারের বলেন, ‘খেলোয়াড়কে রক্ষা করা দরকার। আমি যখন বার্সেলোনার বিপক্ষে খেলি তখন লিওনেল মেসিকে ফাউল করলে আমি একটা হলুদ কার্ড পাই। ইউরোপে এটা এভাবেই হয়। অথচ আপনি পুরো একটা ম্যাচ থেকে এরকম খেলোয়াড়দের (নেইমার) ছিটকে দিতে পারেন না। আমি ঠিক তার পাশেই ছিলাম। এমনকি সে তাকে স্পর্শই করেনি। রেফারি দুই মিটার দূরে ছিলেন, কিন্তু তিনি সিদ্ধান্ত নিলেন যে সে ওকাম্পোসকে ফাউল করেছে। তার এই সিদ্ধান্ত আমি বুঝতে পারছি না।’

লিগ ওয়ানে রবিরাতে অলিম্পিক মার্শেইর বিপক্ষে ২-২ গোলের ড্র করেছে পিএসজি।

এদিন মার্শেইর মাঠ স্তাদে ভেলোড্রমে পিএসজির হয়ে প্রথমার্ধে গোল করেন নেইমার। আর এডিনসন কাভানির গোলে হার এড়ায় পিএসজি।

এই ড্রয়ে ১০ ম্যাচে ২৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে পিএসজি। ২২ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে মোনাকো। পঞ্চম স্থানে থাকা মার্শেইয়ের অর্জন ১৮ পয়েন্ট।

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

four × five =