কাতালুনিয়ার স্বাধীনতার প্রশ্নে গণভোটের দিনে উত্তপ্ত স্পেন। প্রথমে শোনা গিয়েছিল লাস পালমাসের বিপক্ষে কাতালান ক্লাব বার্সেলোনার ম্যাচটি স্থগিত করা হয়েছে। পরে জানা গেল, ম্যাচ সময়মতোই মাঠে গড়াবে। নাটকীয়তা শেষে মাঠে গড়ানো ম্যাচে প্রথমার্ধে নিজেদের সেরাটা দিতে পারেনি বার্সেলোনা। তবে দ্বিতীয়ার্ধে চেনা ছন্দে ফেরে কাতালানরা। দলের সেরা তারকা লিওনেল মেসিও ফেরেন স্বরূপে। তার তাতে লাস পালমাসকে ৩-০ গোলে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে নিজেদের অবস্থান আরো মজবুত করল বার্সা।

লা লিগার নতুন মৌসুমে এটি বার্সেলোনার টানা সপ্তম জয় এবং সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে টানা নবম। এই জয়ের ফলে রিয়াল মাদ্রিদের চেয়ে এক ম্যাচ বেশি খেলে ১০ পয়েন্ট এগিয়ে গেল বার্সা। রাতে ঘরের মাঠে কাতালান ক্লাব এসপানিওলকে আতিথ্য দেবে রিয়াল।

গণভোটের দিন ম্যাচটি স্থগিত করার জন্য লা লিগা কমিটির কাছে আবেদন করে বার্সেলোনা। সেই আবেদনে সাড়া দেয়নি টুর্নামেন্টের কমিটি। ম্যাচ না খেললে প্রতিপক্ষকে ৩-০ গোলের জয় উপহার দেয়া হবে- এই মর্মে লা লিগা কমিটির পক্ষ থেকে ঘোষণা দেয় হয়। ফলে খেলতে বাধ্য হয় বার্সা।

গণভোটের দিনে ম্যাচ মাঠে গড়ালে কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটতে পারে- এই শঙ্কায় দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে খেলে বার্সেলোনা। প্রথমার্ধে বার্সা কোনো গোল না পেলেও দ্বিতীয়ার্ধে অপ্রতিরোধ্য রূপে ধরা দেয়। ফলে সহজ জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে আর্নেস্টো ভালভার্দের দল।

গোলশূন্য প্রথমার্ধের পর বিরতির পরপরই এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। মেসির পাস থেকে গোল করে দলকে এগিয়ে নেন সের্জিও বুসকেটস।

ম্যাচের বাকি দুটি গোল মেসির পা থেকে আসে। ৭০তম মিনিটে ডেনিস সুয়ারেজের পাস থেকে গোল করে বার্সার ব্যবধান দ্বিগুণ করেন কার্লোস পুয়োলকে (৫৯৩) টপকে বার্সেলোনার হয়ে তৃতীয় সর্বোচ্চ ম্যাচ খেলার রেকর্ড গড়া মেসি (৫৯৪)।

সাত মিনিট পর বার্সেলোনার বড় জয় নিশ্চিত করেন মেসি। এবার তার গোলে অ্যাসিস্ট করেন আরেক সুয়ারেজ তথা লুইস সুয়ারেজ। এরপর আর কোনো গোল না হলেও পূর্ণ তিন পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ে বার্সা। চলতি মৌসুমে লা লিগায় সাত ম্যাচে ১১ গোল করলেন মেসি।

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

8 + 10 =