যুক্তরাষ্ট্রের জন্য চীন রাশিয়ার মতোই বড় হুমকি বলে মন্তব্য করছেন মার্কিন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার (সিআইএ) প্রধান মাইক পম্পেও। এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, পশ্চিমা দেশগুলোর ওপর গোপন প্রভাব বিস্তারে সচেষ্ট চীন।

সিআইএ প্রধানের এই সাক্ষাৎকারটি নিয়েছে বিবিসি। এই গোয়েন্দা সংস্থার প্রধানের দায়িত্ব নেওয়ার আগে পম্পেও মার্কিন কংগ্রেসে রিপাবলিকান পার্টির কট্টর সদস্য ছিলেন। ওই সাক্ষাৎকারে উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্যিক তথ্য চুরি এবং শিক্ষাঙ্গন ও হাসপাতালগুলোতে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করেছে চীন। তাদের এই প্রচেষ্টা এখন যুক্তরাজ্যসহ ইউরোপজুড়ে বিস্তৃত হয়েছে।

মাইক পম্পেও বলেন, ২০১৮ সালের নভেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রে যে মধ্যবর্তী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে, তাতে রাশিয়া হস্তক্ষেপের চেষ্টা করতে পারে। তিনি বলেন, ‘দুই অর্থনীতির (রাশিয়া ও চীন) বিষয়টা ভাবুন। এ ক্ষেত্রে  চীনের সক্ষমতা বেশি।’

মার্কিন পর্যবেক্ষণ উড়োজাহাজকে রুশ যুদ্ধবিমানের তাড়া
সিএনএন জানায়, পেন্টাগন অভিযোগ করেছে, যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনীর একটি পর্যবেক্ষণ উড়োজাহাজকে গত সোমবার তাড়া করেছে রাশিয়ার একটি যুদ্ধবিমান। এ সময় রুশ যুদ্ধবিমানটি মার্কিন উড়োজাহাজের পাঁচ ফুটের মধ্যে চলে আসে। মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তরের তিন কর্মকর্তা বলেছেন, কৃষ্ণসাগরের ওপর আন্তর্জাতিক আকাশসীমা দিয়ে সোমবার উড়ে যাচ্ছিল নৌবাহিনীর উড়োজাহাজটি। এ সময় রাশিয়ার একটি এসইউ-২৭ যুদ্ধজাহাজ বিপজ্জনকভাবে কাছে চলে আসে।

রুশ ব্যক্তিদের তালিকা প্রকাশ

এএফপি জানায়, রাশিয়ার যেসব কর্মকর্তা ও ব্যবসায়িক নেতার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা যায়, তাঁদের একটি তালিকা প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের অর্থ দপ্তর। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপের অভিযোগে মস্কোকে সাজা দিতে এই তালিকা তৈরি করা হয়েছে। সোমবার প্রকাশ করা ওই তালিকায় ১১৪ জন রাজনীতিকের নাম রয়েছে, যাঁদের অধিকাংশই রুশ প্রশাসনের জ্যেষ্ঠ সদস্য। ৯৬ জন ব্যবসায়ীও রয়েছেন, যাঁরা প্রেসিডেন্ট পুতিনের ঘনিষ্ঠ।

Comments

comments

আরও পড়ুনঃ   রাহুল গান্ধী কংগ্রেসের সভাপতি

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

three × five =