মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন শুক্রবার জোর দিয়ে বলেছেন, মাদক চোরাচালান বিরোধী লড়াইয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকো সহযোগিতা জোরদার করেছে। ডোনাল্ড ট্রাম্পের মেক্সিকো বিরোধী বক্তব্যের প্রভাব ঝেড়ে ফেলে তারা এ সহযোগিতা জোরদার করে। খবর এএফপি’র।
মেক্সিকান অভিবাসন, নর্থ আমেরিকান ফ্রি ট্রেড অ্যাগ্রিমেন্ট এবং সীমান্ত দেয়াল নির্মাণ করা বিষয়ে ট্রাম্পের কঠোর অবস্থানের ব্যাপারে তার আক্রমণাত্মক বক্তব্যের কারণে যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকোর মধ্যে সম্পর্কের অবনতি ঘটে।
সমালোচকরা বলছেন, তিনি মিত্র ও প্রতিবেশী দেশের সাথে বিপন্ন মার্কিন সম্পর্কের ঝুঁকি নিচ্ছেন। নিরাপত্তাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে এ প্রতিবেশী দেশের সহযোগিতা প্রয়োজন ওয়াশিংটনের।
টিলারসন এই প্রথমবারের মতো তার গুরুত্বপূর্ণ ল্যাটিন আমেরিকা সফর শুরু করেছেন। এ সফরে তিনি ও মেক্সিকোর পররাষ্ট্রমন্ত্রী দু’দেশের মধ্যে থাকা যে কোন উত্তেজনা প্রশমনের অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন এবং তারা আন্তর্জাতিক মাদক বাণিজ্যের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ওপর গুরুত্ব দেন।
মেক্সিকো সিটিতে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী লুইস ভিদাগারে ও কানাডার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ক্রিশ্টিয়া ফ্রিল্যান্ডের সঙ্গে বৈঠকের পর টিলারসন বলেন, ‘কোকেন, হিরোইনসহ সব ধরণের মাদকের ভয়ংকর প্রভাব রোধে আমরা ভিন্ন আঙ্গিকের সহযোগিতার ক্ষেত্র তৈরী করছি।’
তিনি বলেন, ‘এই মাদক আমেরিকা, মেক্সিকো ও কানাডার নাগরিকদের ওপর মারাত্মক নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে।’
গত অক্টোবর মাসে ট্রাম্প ঘোষণা দেন যে আফিম যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় জনস্বাস্থ্যের জন্য একটি বড় হুমকি হিসেবে দেখা দিয়েছে।
এক্ষেত্রে পরস্পরকে দোষারোপ না করে সহযোগিতার একটি দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে হবে।
পরে টিলারসন মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট এনরিক পেনা নিয়েতোর সঙ্গে সাক্ষাত করে বলেছেন, তারা দু’দেশের মধ্যে থাকা সম্পর্ক জোরদারের ব্যাপারে সম্মত হয়েছেন।

Comments

comments

আরও পড়ুনঃ   আফগানিস্তানের ৭০ ভাগজুড়ে সক্রিয় তালিবান: বিবিসি সমীক্ষা

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

11 − one =