ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির বিরুদ্ধে বিদ্রোহের অন্যতম এক নায়ক ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বাঁকুড়ার রাইপুরের রাজা দুর্জন সিংহ। জানা গেছে, যে অস্ত্র দিয়ে তিনি একদিন ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির বিরুদ্ধে গর্জে উঠেছিলেন সেই অস্ত্র দিয়েই এখন রাজপরিবারের কুলদেবতা দেবী মহামায়ার পূজায় বলিদান হয়।

তবে কথিত আছে, বহু প্রাচীন এই মহামায়া মন্দিরে একসময় নরবলি হত। সেই নরবলির রক্ত নালার মধ্য দিয়ে গিয়ে পাশের কংসাবতীর পানিতে মিশে যেতো।

রাইপুর রাজপরিবার সূত্রে জানা গেছে, সারা বছর বর্তমান রাজবাড়িতে ওই অস্ত্র সযত্নে রাখা থাকে। তবে দুর্গা পূজার ষষ্ঠীর দিন বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা সহকারে সেই অস্ত্র আনা হয় মহামায়া মন্দিরে। মহাষ্টমীর ছাগ বলিতে ব্যবহৃত হয় রাজা দুর্জন সিংহের অস্ত্র। দশমী পূজা শেষে একইভাবে শোভাযাত্রা সহকারে নিয়ে যাওয়া হয় রাজবাড়িতে। পূজার কয়েকটা দিন রাজা দুর্জন সিংহের ওই অস্ত্র সাধারণ মানুষের কাছে অন্যতম দ্রষ্টব্য হয়ে ওঠে।

জানা যায়, দেবী মহামায়ার পূজায় রাজা দুর্জন সিংহ হাত কামান ব্যবহার করতেন। এই কামান তোপধ্বনির শব্দ শুনে আগে এলাকার অন্যান্য পুজাগুলোতে সন্ধি পূজা শুরু হত।

উল্লেখ্য, ১৭৬৯ সাল থেকে ১৭৯৯ সাল পর্যন্ত এই বিদ্রোহ চলেছিল। যার অন্যতম নেত্রী ছিলেন ভারতের মেদিনীপুরের কর্ণগড়ের রানি শিরোমনি। সেই চোয়াড় বিদ্রোহের নায়ক রাজা দুর্জন সিংহ।

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

1 + 16 =