রাজধানীর মিরপুরে রাস্তার পাশ থেকে রক্তাক্ত এক কিশোরীকে (১৬) উদ্ধার করেছেন স্থানীয় ব্যক্তিরা। মেয়েটি জানায়, কয়েকজন যুবক একটি আবাসিক হোটেলে নিয়ে ধর্ষণ করার পর তাকে সেখানে ফেলে রেখে যান। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

মেয়েটির বাড়ি টাঙ্গাইলে। শুক্রবার রাত সাড়ে আটটার দিকে মিরপুর ১০ নম্বরের শাহ আলী কমপ্লেক্সের নিচ থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। পুলিশ বলছে, পুরো বিষয়টি তারা পর্যবেক্ষণ করছে।
সাজ্জাদ হোসেন নামের একজন নিরাপত্তারক্ষী ও তাঁর স্ত্রী মেয়েটিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান। মুঠোফোনে সাজ্জাদ প্রথম আলোকে বলেন, মেয়েটি একটি বেঞ্চের নিচে পড়ে ছিল। লোকজন তাকে ঘিরে রেখেছিল। কাছে গিয়ে দেখতে পান সে রক্তাক্ত। এরপর তিনি তাঁর স্ত্রীকে ডেকে আনেন। প্রথমে তাকে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে নিয়ে যান। সেখানে চিকিৎসা না দিলে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানেও চিকিৎসা না দিলে পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়।
শাহ আলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, মেয়েটিকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর তাঁরা বিষয়টি জানতে পেরেছেন। থানার এক পুলিশ সদস্য হাসপাতালে আছেন। প্রাথমিকভাবে মেয়েটি জানিয়েছে, এক ছেলের সঙ্গে তার সম্পর্ক ছিল। বিয়ে করার কথা বলে তাকে বাড়ি থেকে নিয়ে আসে সে। এরপর বাড্ডা এলাকায় একটা জায়গায় বসতে বলে সে চলে যায়। আর ফিরে আসেনি। তার সঙ্গে থাকা টাকা ও স্বর্ণালঙ্কারও সে নিয়ে যায়। এরপর এক যুবক এসে গাজীপুরে তার এক দূর সম্পর্কের দুলাভাইয়ের কাছে পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে তাকে কোনো একটি হোটেলে নিয়ে যান। সেখানে তাকে ধর্ষণ করা হয় বলে জানিয়েছে সে।
ওসি বলেন, মেয়েটি অসুস্থ হওয়ায় ঠিকমতো কথাই বলতে পারছে না। সুস্থ হওয়ার পর তার সঙ্গে বিস্তারিত কথা বলা হবে। এরপর কী করা যায়, সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

2 + six =