এশিয়া ক্লিয়ারিং ইউনিয়নের (আকু) দায় পরিশোধের পর আবারও বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ৩ হাজার ২০০ কোটি ডলারে (৩২ বিলিয়ন) নেমে এসেছে। গত বুধবার রিজার্ভ থেকে আকুতে প্রায় ১৩৬ কোটি ডলার পরিশোধ করে বাংলাদেশ ব্যাংক। এরপরই রিজার্ভ ৩২ বিলিয়ন ডলারের নিচে নেমে আসে। গত বৃহস্পতিবার তা কিছুটা বেড়ে ৩২ বিলিয়ন ডলার ছাড়ায়। কেন্দ্রীয় ব্যাংক সূত্রে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।
জানা যায়, এশিয়া মহাদেশের দেশগুলো থেকে রপ্তানির চেয়ে বেশি আমদানি হওয়ায় এবার আকুতে বড় দায় শোধ করতে হয়েছে বাংলাদেশকে। নভেম্বর-ডিসেম্বর সময়ে সৃষ্ট এ দায় টাকার অঙ্কে
১১ হাজার কোটি টাকার ওপরে। মার্কিন ডলারের হিসাবে এ দায়ের পরিমাণ প্রায় ১৩৬ কোটি ডলার, এটি এযাবৎকালের মধ্যে সর্বোচ্চ দেনা। প্রতিবেশী দেশগুলো থেকে আগের তুলনায় বেশি খাদ্যপণ্য আমদানির কারণেই এ দায় তৈরি হয়।
বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্র জানায়, এর আগে জুলাই-আগস্ট সময়ে আকুতে সৃষ্ট দায় ছিল ১১৮ কোটি ৯০ লাখ ডলার বা ৯ হাজার ৭০০ কোটি টাকা। সেপ্টেম্বর-অক্টোবর সময়ে যা ছিল ১১৩ কোটি ২০ লাখ ডলার বা প্রায় ৯ হাজার ৩০০ কোটি টাকা। আর নভেম্বর-ডিসেম্বরে এসে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩৫ কোটি ৬০ লাখ ডলার বা ১১ হাজার ১২০ কোটি টাকায়।
এশিয়ান ক্লিয়ারিং ইউনিয়ন হলো কেন্দ্রীয় ব্যাংকগুলোর মধ্যে একটি আন্ত-আঞ্চলিক লেনদেন নিষ্পত্তিব্যবস্থা। এর মাধ্যমে
এশিয়ার ৯ দেশের মধ্যে যেসব আমদানি-রপ্তানি হয়, তা প্রতি দুই মাস পরপর নিষ্পত্তি হয়। তবে অন্য দেশগুলোর সঙ্গে বাংলাদেশের লেনদেন তাৎক্ষণিক সম্পন্ন হয়। আকুর সদস্যদেশগুলো হচ্ছে বাংলাদেশ, ভারত, ইরান, নেপাল, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, মিয়ানমার, ভুটান ও মালদ্বীপ।

Comments

comments

আরও পড়ুনঃ   ৪০ গ্রেডের রড ৬০ গ্রেডের সিল দিয়ে বাড়তি দামে বিক্রি, প্রতারণায় যুক্ত মিলমালিক ও বিক্রেতারা

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

7 − seven =