শেখ নোমান:

মিয়ানমারকে রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের দায়িত্ব নিতে হবে বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের ভারপ্রাপ্ত সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী সিমন হেনশো।

৪ নভেম্বর শনিবার আমেরিকান ক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

সিমন হেনশো বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের দায়িত্ব মিয়ানমারের এবং প্রক্রিয়া শুরুর দায়িত্বও তাদের। রোহিঙ্গারা যেন স্বেচ্ছায় ফিরতে পারেন, সেজন্য নিরাপদ ও সুরক্ষিত এলাকা মিয়ানমারকেই নিশ্চিত করতে হবে।’

রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারের রাজনৈতিক সমঝোতারও প্রয়োজন আছে বলে জানান হেনশো।

সংবাদ সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র হিথার নওয়ারট বলেন, হোয়াইট হাউজ রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে অবগত আছে। হোয়াইট হাউজে বর্তমানে আলোচনার শীর্ষে রয়েছে রোহিঙ্গা সংকট।

যুক্তরাষ্ট্র রোহিঙ্গাদের জন্য ইতোমধ্যে ৩২ মিলিয়ন ডলার বরাদ্দ করেছে বলে জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে ঢাকায় দেশটির রাষ্ট্রদূত মার্সা বার্নিকাট উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, গত ২৫ আগস্ট রাখাইন রাজ্যে সেনা অভিযান চালায় মিয়ানমার। এরই প্রেক্ষিতে এখন পর্যন্ত ৬ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।

সম্প্রতি, আন্তর্জাতিক মহলের সমালোচনার মধ্যে মিয়ানমার ১৯৯২ সালের প্রত্যাবাসন চুক্তির আওতায় রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেওয়ার কথা বলেছে। কিন্তু বাংলাদেশের পক্ষ থেকে জাতিসংঘকে যুক্ত করাসহ একাধিক প্রস্তাব রাখা হয়। গত ৩১ অক্টোবর মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে দেরির জন্য উল্টো বাংলাদেশকে দোষারোপ করে।

Comments

comments

আরও পড়ুনঃ   রাখাইনের কয়েকটি গ্রামে ‘রোহিঙ্গামুক্ত’ সাইনবোর্ড

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

fourteen − 8 =