কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালংয়ে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে হাতির আক্রমণে বাবা-ছেলের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় আহত হয়েছেন আরো তিনজন। সোমবার ভোরে উপজেলার মধুরছড়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন, শামশুল আলম (৫৫) ও তার দুই বছর বয়সী ছেলে ছৈয়দুল আমিন। শামশুল আলম মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের বলিবাজার ফকিরের ডেইল এলাকার নুরুল আলমের ছেলে। তারা সম্প্রতি আশ্রয়ের আশায় বাংলাদেশে পালিয়ে আসে বলে জানিয়েছেন রোহিঙ্গারা।

রাজাপালং ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী জানান, তার ইউনিয়নের কুতুপালং মধুরছরা গুলশানপাহাড় দুর্গম এলাকা। এবার আসা রোহিঙ্গারা দুর্গম পাহাড়েও ঝুপড়ি তুলে বাস করছে, যা হাতির নিয়মিত বিচরণ ক্ষেত্র।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আফরুজুল হক টুটুল জানান, ভোরে খাদ্যের সন্ধানে পাহাড় থেকে হাতির পাল নেমে আসে লোকালয়ে। এ সময় ওই এলাকার ক্যাম্পের রোহিঙ্গার দিগ্বিদিক হয়ে ছোটোছুটি করে। এতে হাতির পায়ে পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই বাবা-ছেলের মৃত্যুর। এ সময় আহত হন তিনজন। তাদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, নিহত বাবা ছেলের উদ্ধার করা হয়েছে।

 

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বুনো হাতির আক্রমণে ২ জন নিহত
 Published : Tuesday, 19 September, 2017
 বাংলাদেশের কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বন্যহাতির আক্রমণে দুজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন শিশুসহ আরো কয়েকজন। উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল খায়ের জানান, সোমবার শেষ রাতের দিকে উখিয়ার কুতুপালং মধুরছড়ায় গুলশানপাহাড় নামক স্থানে গড়ে ওঠা রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এ ঘটনা ঘটে। : মি. খায়ের জানিয়েছেন, গুলশানপাহাড় জায়গাটি মূলত বন্যহাতির আবাস। কয়েকদিন আগে সেখানে বন্যহাতি চলাচলের রাস্তার উপরেই গড়ে ওঠে রোহিঙ্গা ক্যাম্প। সোমবার শেষ রাতের দিকে ওই ক্যাম্পে একদল বন্যহাতি আক্রমণ চালালে দুইজন রোহিঙ্গা হাতির পায়ে পিষ্ট হয়ে মারা যায়। হঠাৎ এমন আক্রমণে সবাই শংকিত হয়ে পড়লে দৌড়াদৌড়িতে আরো কয়েকজন আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন মি. খায়ের।  সকাল থেকে সেখানে বন বিভাগের কর্মী ও পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ওই ক্যাম্পে কয়েক হাজার রোহিঙ্গা শরণার্থী আশ্রয় নিয়েছে। বাংলাদেশে কক্সবাজার এলাকায় গত তিন সপ্তাহে চার লাখের বেশি রোহিঙ্গা আশ্রয় নিয়েছে। – বিবিসি বাংলা :

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

eighteen − twelve =