১৫ বছর বয়সী কিশোরী। পরিবারের সঙ্গেই থাকে দক্ষিণ যাত্রাবাড়ীর একটি বাসায়। লেখাপড়া করে যাত্রাবাড়ী আইডিয়াল স্কুলের দশম শ্রেণিতে। সে ওই স্কুলের শিক্ষক আইয়ুব খানের কাছে একটি ব্যাচে প্রাইভেট পড়তো। কিন্তু সেই শিক্ষকই তাকে যৌন নিপীড়ন করেছে বলে অভিযোগ করেছে ওই কিশোরী। যাত্রাবাড়ী থানায় ওই কিশোরীর মা জাহানারা আক্তার বাদী হয়ে একটি মামলাও দায়ের করেছেন।
মামলাটি বর্তমানে তদন্তাধীন আছে। মামলার এজাহারে কিশোরীর মা উল্লেখ করেছেন ১৭ই ফেব্রুয়ারি আমার মেয়ে প্রাইভেট পড়তে যেতে পারেনি। তাই শিক্ষক আইয়ুব খান পেছনের পড়ার গ্যাপ পূরণ করার জন্য আমার মেয়েকে ২০শে ফেব্রুয়ারি তার বাসায় একা যাওয়ার কথা বলেন। পরে ওই দিন সকাল সাড়ে আটটার দিকে শিক্ষকের বাসায় সে প্রাইভেট পড়তে যায়। পরে ওই শিক্ষার্থী বাসায় প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার পর শিক্ষকের স্ত্রী ও সন্তানেরা বাসার বাইরে চলে যায়। তখন ওই শিক্ষক আমার মেয়েকে বাসায় একা পেয়ে কুপ্রস্তাব দেয়। মেয়ে বাধা দিলে তাকে জোর করে ধর্ষণের চেষ্টা করে ওই শিক্ষক। সে চিৎকার করার চেষ্টা করলে বিষয়টি কাউকে না জানানোর জন্য ভয়ভীতি দেখানো হয়। তারপর সেখান থেকে আমার মেয়ে বাসায় এসে কান্নাকাটি করে ঘটনাটি আমাদেরকে জানায়। পরে আমার ভাইকে সঙ্গে নিয়ে ওই শিক্ষকের কাছে গেলে তিনি আমাদের কাছে বিষয়টি স্বীকার করেন। যাত্রাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনিসুর রহমান বিশ্বাস ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে মানবজমিনকে বলেন, ঘটনার পরে ওই কিশোরীর মা বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন। আমরা ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠিয়েছি।

Comments

comments

আরও পড়ুনঃ   বিয়ের দাবিতে ইউপি সদস্যের বাড়িতে কলেজ ছাত্রী!

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

twenty − 20 =